Beta

শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহারে ৩০তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠিত

০৯ নভেম্বর ২০১৮, ২৩:০৯

নিজস্ব প্রতিবেদক
রাজধানীর মিরপুরে অবস্থিত শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহারে আজ শুক্রবার ৩০তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে সম্পন্ন হয়। ছবি : সংগৃহীত

রাজধানীর মিরপুরে অবস্থিত শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহারে ৩০তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে দিনব্যাপী নানা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। পার্বত্য বৌদ্ধ সংঘ ও শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহার পরিচালনা কমিটির যৌথ উদ্যোগে আজ শুক্রবার অনুষ্ঠিত এই কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানে শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহারে বর্ষাব্রত অধিষ্ঠান সফলভাবে পালনকারী পুণ্যপুত ভিক্ষু সংঘকে আনুষ্ঠানিকতার মধ্য দিয়ে কঠিন চীবর দান করা হয়।

দিনব্যাপী কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শাক্যমুনি বৌদ্ধবিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞানন্দ মহাথেরো।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ৩০তম কঠিন চীবর দান উদযাপন কমিটির ২০১৮-এর আহ্বায়ক কীর্তি নিশান চাকমা। বহুবিধ পুণ্যফলে পরিপূর্ণ এ পবিত্র কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানে তিন পার্বত্য জেলাসহ সমতলের বহু বিদগ্ধ ও প্রাজ্ঞ ভিক্ষু সংঘসহ দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট মণীষী ও রাজধানী ঢাকাস্থ সদ্ধর্ম পিপাসু ও মুক্তিকামী বৌদ্ধ জনগোষ্ঠী এ সাড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এই দানানুষ্ঠানে সম্পর্কে শাক্যমুনি বৌদ্ধ বিহারের অধ্যক্ষ ভদন্ত প্রজ্ঞানন্দ মহাথেরো বলেন, কঠিন চীবর বুদ্ধের ধর্ম দর্শন প্রচার ও প্রসারে আত্মনিবেদিত ভিক্ষু সংঘের পবিত্র উত্তরাধিকার। প্রতিটি বৌদ্ধ ভিক্ষু তাঁর জীবনে একবার হলেও পবিত্র কঠিন চীবরে আকীর্ণ হয়ে বিনয়ে প্রজ্ঞাপ্ত পঞ্চ গুণের অধিকারী হওয়ার প্রত্যাশা রাখেন ও পঞ্চ দোষ থেকে মুক্তির জন্য মুখিয়ে থাকেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement