‘মালয়েশিয়া থেকে শ্রমিকদের টাকা আত্মসাৎ করে বাংলাদেশে’

০৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২:১৫

মালয়েশিয়ায় ভিসা-সংক্রান্ত জালিয়াতির মাধ্যমে শ্রমিকদের ৪০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে বাংলাদেশি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ‘ভূমি টুঙ্গাল গ্রুপ অব কোম্পানি’র  সুপারভাইজারের বিরুদ্ধে।

গতকাল বুধবার দেশটির রাজধানী কুয়ালালামপুরের জালান কেলাং নামায় প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সুপারভাইজার সুলেমানের বিরুদ্ধে ওই অভিযোগ তোলেন প্রতিষ্ঠানের পরিচালক সিতি আয়েশা বিনতে মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান মিজানসহ ভুক্তভোগীরা।

অভিযোগে বলা হয়, ২০১৬ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত কোম্পানিতে কর্মরত শ্রমিকদের ভিসা করা ও নবায়নের দায়িত্বে ছিলেন সুপারভাইজার সুলেমান। সে বাবদ শ্রমিকদের কাছ থেকে টাকা সংগ্রহ করেন তিনি। কিন্তু সে টাকার অধিকাংশই প্রতিষ্ঠানের ফান্ডে জমা না দিয়ে তা আত্মসাৎ করে বাংলাদেশে পালিয়ে যান তিনি। এর ফলে বিপদে পড়েন কয়েকশ বাংলাদেশি শ্রমিক।

সুলেমানের পাসপোর্ট নম্বর বিএফ ০২৩২৭৭৪৩। কুমিল্লার বুড়িচং থানার পারুপাড়া গ্রামে তাঁর স্থায়ী নিবাস।

এদিকে সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থেকে সুলাইমানের আপন ভায়রা মোহাম্মদ জাকির হোসেন বলেন, ‘আমি নিজেও প্রতারণার শিকার। আমি এর উপযুক্ত বিচার চাই।’

অন্য ভুক্তভোগীদের মধ্যে ফরিদপুরের মফিজুল শিকদার, চাঁদপুরের সাদ্দাম মোল্লা, কুমিল্লার শিহাব উদ্দিন রানা, সিরাজগঞ্জের আশরাফুল আলম, খুলনার আহমাদুল কবির সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

এরই মাঝে ‘ভূমি টুঙ্গাল গ্রুপ অব কোম্পানি’র পক্ষ থেকে মালয়েশিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাসকে সুলাইমানের প্রতারণার ঘটনা অবহিত করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে রিপোর্ট করেছে দেশটির পুলিশ।