Beta

‘ঝালমুড়ি’তে ঈদের কেনাকাটা

০৯ জুন ২০১৬, ১২:১৭

অনলাইন ডেস্ক

‘সৃষ্টির আনন্দে ঈদ আয়োজন’ প্রতিপাদ্য সামনে রেখে দ্বিতীয়বারের মতো প্রদর্শনী নিয়ে হাজির হচ্ছে ফেসবুকভিত্তিক চার উদ্যোক্তার আয়োজন ‘ঝালমুড়ি’। বৈশাখে প্রথম ‘ঝালমুড়ি’র সাফল্যের পর ঈদ আয়োজন নিয়ে ক্রেতাদের আগ্রহ বেড়ে যায়।

ঈদুল ফিতর সামনে রেখে আবারও আগামীকাল শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে বিভিন্ন পণ্যের প্রদর্শনী ‘ঝালমুড়ি’, এটি চলবে ১৪ জুন-২০১৬ পর্যন্ত। পাঁচ দিনব্যাপী এই প্রদর্শনীর মূল আকর্ষণ এক ছাদের নিচে পছন্দের সব পণ্যের সমাহার।

স্ট্রিংজ, উৎসাহ (ইউ), সুইট পটেটো ও সিক্স ইয়ার্ডস স্টোরি—ফেসবুকে জনপ্রিয় এই চারটি অনলাইন বাণিজ্য উদ্যোগ তাদের ক্রেতাদের জন্য ঈদ উপলক্ষে পসরা সাজাচ্ছে নিজস্ব ডিজাইনের শাড়ি, গয়না, কামিজ, কুর্তিসহ নানা রকম পোশাক, সাজের অনুষঙ্গ ও ঘর সাজানোর পণ্য দিয়ে।

প্রদর্শনীটি হবে বনানী ১০ নম্বর সড়কের বাটন রুজ ব্যাংকোয়েট হলে। চলবে প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত।

রং, সুতা, কাপড়, ডিজাইন, মোটিফ, নকশা নিয়ে নানা নিরীক্ষা করতে ভালোবাসেন ‘স্ট্রিংজ’-এর উদ্যোক্তা তানজিনা আনিস প্রেমা। পেশায় প্রকৌশলী এই উদ্যোক্তার হাতে গড়া ‘স্ট্রিংজ’ পরিচিতি পায় এর নিজস্ব ঢঙের স্বকীয়তার জন্য। শাড়ি, কামিজ, টপস, ব্লাউজ পিস, কুর্তি সবই পাওয়া যায় স্ট্রিংজে। হাতের কাজ, এমব্রয়ডারি, স্ক্রিনপ্রিন্টসহ নানা রকম নকশায় ডিজাইন করা হয় একেকটি পোশাক।

‘উৎসাহ’ দেশি তাঁতের শাড়ি আর নেপালি গয়নার সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে, যার অন্যতম আকর্ষণ ডিজাইনের রকমফের। উৎসাহের উদ্যোক্তা মনামি সানজিয়া বিজ্ঞাপন সংস্থায় কর্মরত। নিজেই নেপাল থেকে বেছে আনেন বাহারি সব গয়না, আর দামও হাতের নাগালে থাকায় ভিন্নধর্মী গয়নার ক্রেতাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে এটি। এ ছাড়া দেশের নানা অঞ্চল থেকে সংগ্রহ করা নানা রকম শাড়ির বিপুল সংগ্রহের সঙ্গে ঘর সাজানোর অনুষঙ্গও পাওয়া যাচ্ছে এখানে।

ভিন্নধর্মী গয়নার অন্য রকম আরেকটি সংগ্রহ নিয়ে ‘ঝালমুড়ি’তে আছে ‘সিক্স ইয়ার্ডস স্টোরি’, এর উদ্যোক্তা লরা খান পেশায় স্থপতি, ভালোবাসেন রুপা, তামা, পেতল নিয়ে নানা রকম এক্সপেরিমেন্ট করতে। নিজস্ব কারিগর দিয়ে লরা তাঁর ডিজাইনের গয়না বানান। এ ছাড়া সিরাজগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী তাঁতের শাড়িও থাকবে তার সংগ্রহে।

ঝালমুড়ির আরেক সঙ্গী সুইট পটেটো। আড়াই বছর আগে এর যাত্রা শুরু হয় টাঙ্গাইলের ঐতিহ্যবাহী তাঁতের শাড়ির সংগ্রহ নিয়ে। এবার ঈদ সংগ্রহে সুতি, হাফসিল্ক, মসলিন, সুতি কাতানের সঙ্গে অন্যতম আকর্ষণ হিসেবে থাকছে সিলেটের ঐতিহ্যবাহী মণিপুরী শাড়ি আর টাঙ্গাইলের রেশমের সমন্বয়ে গড়ে ওঠা মণিপুরী প্যাটার্নের হাফসিল্ক শাড়ি। ‘সুইট পটেটো’র উদ্যোক্তা রোকসানা রশীদ বছরজুড়ে তাঁর সংগ্রহে আসা ভিন্নধর্মী এবং বিশেষ শাড়িগুলো তুলে রেখেছিলেন ঈদ উপলক্ষে। তাই ঈদে ঝালমুড়িতে ক্রেতারা পাচ্ছেন বাছাইকৃত শাড়ির সংগ্রহ থেকে পছন্দসই শাড়িটি বেছে নেওয়ার সুযোগ।

Advertisement