৮০ টাকায় মাখনের বিরিয়ানি

০৯ আগস্ট ২০১৮, ১১:৫৮

তামজিদ হাসান

ভোজনরসিকদের খাবারের তালিকায় বিরিয়ানি যেন না থাকলেই নয়। আবার তাও যদি হয় ক্রেতার সাধ্যের মধ্যে, তাহলে তো আর কোনো কথা নেই। খাবারের দিক দিয়ে রাজধানীর ভেতরে পুরান ঢাকার কোনো বিকল্প নেই। কারণ, এখানকার খাবারে রয়েছে যেমন স্বাদ, আবার রয়েছে স্বল্পমূল্য।

ঠিক এমনই চিন্তা নিয়ে ক্রেতার সাধ-সাধ্য সব দিকে খেয়াল রেখে পুরান ঢাকার রায়সাহেব বাজার মোড়ের (রাইসা বাজার মোড়ে) নাসির উদ্দিন সরদার রোডে ৭০ বছর ধরে বিক্রি হয়ে আসছে ঐতিহ্যবাহী মাখনের বিরিয়ানি। আর নামেমাত্র মূল্য ৮০ টাকা হাফ প্লেট। তবে একজন পূর্ণবয়স্ক ব্যক্তির হাফপ্লেট যথেষ্ট। বলে রাখা ভালো, ফুলপ্লেট ১২০ টাকা। আপনি চাইলে কোয়ার্টার নিতে পারেন, সে ক্ষেত্রে আপনাকে গুনতে হবে বাড়তি ৪০ টাকা।

মাখন বিরিয়ানির অন্যতম প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো তারা কোনো ক্রেতাকে ফেরায় না। ক্রেতারা যে যে রকম টাকা নিয়ে আসে, তাকে সে পরিমাণে বিরিয়ানি দেওয়া হয়। এমনকি পথশিশু ও হতদরিদ্রদের জন্য সর্বনিম্ন ২০ টাকারও বিরিয়ানি বিক্রি করে। 

৭০ বছরের পুরোনো মাখনের বিরিয়ানির প্রতিষ্ঠাতা হাজি মাখন, যিনি শুরুর দিকে এক আনা করে প্রতি প্লেট বিরিয়ানি বিক্রি করতেন। কালের বিবর্তনে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে আজ দাম বেড়ে হয়েছে ৮০ টাকা। ঈদ ছাড়া মাখন বিরিয়ানি হাউস বন্ধ থাকে শুধু শুক্রবার বিকেল বেলা। এ ছাড়া প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত খোলা থাকে মাখন বিরিয়ানি হাউস।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় একই চিত্র, পুরান ঢাকার রায়সাহেব বাজারের নাসির উদ্দিন সরদার রোডের ছোট দোকানের ভেতরে ১০ থেকে ১৫ জন মানুষ/ ক্রেতা একসঙ্গে বিরিয়ানি খাচ্ছে। কিছু মানুষ/ক্রেতা দাঁড়িয়ে আছে, অপেক্ষা করছে কখন খাবারের স্থান ফাঁকা হবে। ভরদুপুর হওয়ায় দোকানে ভিড় ছিল অনেক বেশি।

প্রতিবেদকের এক প্রশ্নের জবাবে হাজি মাখনের ছেলে হাজি সাহাদত বলেন, ‘আমরা বিরিয়ানিতে কোনো ধরনের মাখন দিই না। বাবার নাম অনুসারে দোকানের নামকরণ করা হয় মাখনের বিরিয়ানি হাউস। তবে যারা খেতে আসে, তারা বলে, আমাদের বিরিয়ানির স্বাদ মাখনের মতো। তিনি আরো যোগ করেন, দিনে এক মণ চালের বিরিয়ানি রান্না করা হয়, আর দিনের খাবার দিনেই শেষ হয় বলে তিনি জানান।

যেভাবে যাবেন মাখনের বিরিয়ানি হাউস

রাজধানীর গুলিস্তান থেকে সাভার পরিবহন, ঠিকানা পরিবহন, তা ছাড়া যেকোনো সিটি বাসে করে রায়সাহেব বাজার যাবেন। সেখান থেকে পাঁচ মিনিট হাঁটলে যেতে পারবেন নাসির উদ্দিন সরদদার সড়কের মাখন বিরিয়ানি হাউস।