Beta

৪০ টাকায় ভরপেট খিচুড়ি

২৮ জুলাই ২০১৮, ১১:০০

তামজিদ হাসান
মুম্বাই ফুড কর্নারের ৪০ টাকার খিচুড়ি। ছবি : লেখক

বর্ষাকাল মানেই মেঘলা আকাশ, শীতল আবহাওয়া, গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। আর এই বৃষ্টির দিনে ভোজন রসিক বাঙালিদের চাই খিচুড়ি। সেই খিচুড়ির সাথে একটু পেঁয়াজ ভর্তা, ডিম ভাজি ও সালাদ হলে মন্দ হয় না। আর এত কিছু যদি পাওয়া যায় ৪০ টাকায় তাহলে তো সোনায় সোহাগা। টাকা কম বলে খাবার কিন্তু কম থাকে না। একজন প্রাপ্ত বয়স্ক ব্যক্তির পেট ভরবে নিশ্চিত।

৪০ টাকার এই খাবার খেতে চাইলে যেতে হবে রাজধানীর ধানমণ্ডির ১৫ নম্বরে। সেখানে আলমাস সুপার শপের বিপরীতে অবস্থিত ‘মুম্বাই ফুড কর্নার’। নাম দেখে ভাববেন না এটি একটি আধুনিক দোকান। এটি ফুটপাতের ওপর অবস্থিত একটি ভ্রাম্যমাণ দোকান।

শুক্রবার বাদে সপ্তাহের অন্য ছয়দিন প্রতিদিন সকাল থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত তাদের দোকানে খাবার মেলে। তবে খিচুড়ি শেষ হয়ে যায় দুপুর ২টার মধ্যেই। তারা শুধু খিচুড়িই বিক্রি করে না পাশাপাশি সকালের নাস্তাও বিক্রি করে। নাস্তা হিসেবে পাওয়া যায় পরাটা, সবজি ও ডিম ভাজা। বিকেলের নাস্তায় থাকে পুরি, সবজি সিঙ্গারা ও সমুচা।

গত বুধবার দুপুর ১টার দিকে দোকানে গিয়ে দেখা যায়, ভর দুপুর হওয়ায় দোকানের কর্মচারীরা ব্যস্ত। তিনজন কর্মচারীর একজনকে দেখা যায় ডিম ভাজতে, বাকি দুজনকে দেখা যায় খাবার পরিবেশন করতে। ছোট দোকান হওয়ায় একসঙ্গে ১০ জন বসে খাবার খেতে পারে। অনেকের এক প্লেট খিচুড়িতেই পেট ভরে যায়। তবু কারো যদি পেট না ভরে তাহলে সেই সুযোগও আছে। ২০ টাকা খরচ করে আরো হাফ প্লেট খিচুড়ি খাওয়া যাবে। তবে তখন ডিম ভাজি থাকবে না।

দোকানটি ধানমণ্ডির ১৫ নম্বরের মূল সড়কে হওয়ায় সব শ্রেণি-পেশার মানুষ এখানে দুপুরের খাবার খেতে আসে। তবে তাদের মধ্যে শিক্ষার্থীদের সংখ্যা বেশি।

মুম্বাই ফুড কর্নারের কর্মচারী বিল্লাহ হোসেন বলেন, ‘আমরা প্রতিদিন এক হাড়ি ভুনা খিচুড়ি বেচি। এক হাড়িতে ১২ থেকে ১৩ কেজি চালের খিচুড়ি রান্না হয়। যা রান্না হয় তাই প্রতিদিন বেচি।’

এক প্রশ্নের জবাবে বিল্লাল বলেন, ‘সবাই খায় এই হানে। তয় পাশের ইউল্যাবের ছাত্রছাত্রীরা বেশি খায়।’ তিনি আরো বলেন, ‘প্রতিদিন ভালোই ব্যবসা হয়, মানুষ খাইয়া সুনাম করে এইডাই ভালো লাগে।’

যেভাবে যাবেন

রাজধানীর গুলিস্তান থেকে মাত্র এক ঘণ্টার পথ অতিক্রম করে আপনি যেতে পারেন ধানমণ্ডির ১৫ নম্বরের আলমাস সুপার শপের বিপরীতে অবস্থিত মুম্বাই ফুড কর্নারে। সেক্ষেত্রে আপনি গুলিস্তান থেকে সিটি বাস, মেগা সিটি, রাজা সিটি, মিডওয়ে অথবা তরঙ্গ সিটি বাসে করে একদম মুম্বাই ফুড কর্নারের সামনেই নামতে পারেন। আবার কিছু বাস আছে যেমন উইনার, বিহঙ্গ, সূচনা এই বাসগুলোতে আপনি সাইন্সল্যাবে নেমে রিকশায় করে ধানমণ্ডি ১৫ নম্বরে যেতে পারেন। 

রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে আপনি সিটি বাস, সূচনা, গাবতলী পরিবহন, ওয়েলকাম পরিবহন, সাভার পরিবহনে করে ধানমণ্ডি ২৭ নম্বরে নেমে রিকশা নিয়ে ধানমণ্ডি ১৫ নম্বরে আলমাস সুপার শপের বিপরীতে মুম্বাই ফুড কর্নারে যেতে পারেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement