চুল পড়ার সমস্যা বাড়ছে কেন?

০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৮:৫৮

চুলকে সৌন্দর্যের প্রতীক হিসেবে ধরা হয়। কখনো অতিরিক্ত যত্নে, অথবা কখনো যত্নের অভাবে চুল পড়ার সমস্যা হয়। আবার জিনগত বিষয়, শরীরে পুষ্টির ঘাটতি ইত্যাদি কারণে চুল পড়ার সমস্যা হতে পারে।

বর্তমানে চুল পড়ার সমস্যা বাড়ছে, ছোট থেকে বড় সবাই এই  সমস্যায় ভুগছে, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। চুল পড়ার সমস্যা এত বাড়ছে কেন, এ বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩১৮৫তম পর্বে কথা বলেছেন ডা. তাওহীদা রহমান ইরিন। বর্তমানে তিনি শিওর সেল মেডিকেলের ডার্মাটোলজি বিভাগে পরামর্শক হিসেবে কর্মরত।

প্রশ্ন : চুল পড়ার সমস্যা দিন দিন বাড়ছে। এর কারণ কী?

উত্তর : ত্বক আমাদের শরীরের আবরণ। তারই একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ চুল। চুলকে আমরা হয়তো সৌন্দর্য বর্ধক হিসেবে বলে থাকি। আর সেই চুলের প্রতি মুহূর্তে ঝুঁকির আশঙ্কা থাকে। আর সেই কারণে দেখা যায় প্রবীণরা তো আছেনই, কিশোর- কিশোরী, তরুণ- তরুণী, এমনকি শিশুদের মাতাপিতারাও আসেন, সন্তানদের চুলের নানা ধরনের সমস্যা নিয়ে।

প্রশ্ন : এই যে সমস্যাগুলো হচ্ছে, কেন হচ্ছে?

উত্তর : আমি কারণগুলোকে এভাবে সাজাই, আমরা যে পরিবেশে বাস করছি, পরিবেশে কিন্তু ঋতু বদলের খেলা চলছে। গ্রীষ্মে সূর্যের প্রখরতা, বর্ষায় আর্দ্রতা, আবার শরতে যে ঋতু পরিবর্তন হয়, তার একটি প্রভাব রয়েছে। আবার বসন্তের রুক্ষতা ও শীতে শুষ্কতা- এগুলো প্রত্যেকটি আমাদের চুলকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে।

এরপর জিনগত কিছু বিষয় রয়েছে। স্বাস্থ্যগত কিছু বিষয় রয়েছে। কিছু কিছু রোগে আমাদের চুল পড়তেই থাকে। যেমন হরমোনের ভারসাম্যহীনতা যদি হয়, থাইরয়েডের সমস্যা, ডায়াবেটিস, (যাদের অনেক দিন ধরে ডায়াবেটিস রয়েছে), পলিসিসটিক ওভারিয়ান সিনড্রম যাদের থাকে, তাদের সমস্যা হয়। এর পরও কিছু ওষুধ রয়েছে সেগুলোর কারণে হয়। অনেক দিন ধরে যারা অ্যান্টি হাইপারটেনসিভ বা অ্যান্টি ডিপ্রেসেন্ট ওষুধ নিচ্ছেন, সিস্টেমিক স্টেরয়েড খাচ্ছেন, তাদেরও চুল পড়া দেখা দেয়।

ইদানীং চুল পড়ার কারণ হিসেবে আমার যেটি মনে হয়, আমার অভিজ্ঞতা থেকে, সেটি হলো আমাদের নিজস্ব জীবনযাত্রা। সেখানে রয়েছে আমাদের অপর্যাপ্ত ঘুম,  খাবার আমরা সঠিকভাবে নিচ্ছি না। আর চুলের হয়তো বেশি যত্ন করছি। এভাবে চুলের উপর হয়তো অত্যাচার করছি। অথবা চুলের যত্নে একেবারেই উদাসীন। চুলের যত্নে তুলনায়, চুলের সৌন্দর্যে আমার এখন বেশি আলোকপাত করছি। এই কারণেই সমস্যাগুলো বেশি দেখা দিচ্ছে। ছেলেমেয়ে উভয়েরই।