Beta

গর্ভাবস্থায় যে পাঁচ খাবার এড়িয়ে যাবেন

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫, ১৭:৩১

গর্ভাবস্থায় এসব খাবার এড়িয়ে যেতে হবে। ছবি : ডায়াবেটিস কেয়ার ডট নেট

গর্ভাবস্থা নারী জীবনের কাঙ্ক্ষিত একটি বিষয়। সবাই চায় শিশুটি হোক সুস্থ-সবল। তবে গর্ভাবস্থায় শিশুর বৃদ্ধি ভালো করতে খাবার যেমন জরুরি, তেমনি কিছু খাবার রয়েছে যা এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শই দেন বিশেষজ্ঞরা। স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ডায়াবেটিস কেয়ার ডট নেট জানিয়েছে এই খাবারগুলোর কথা।

১. মার্কারি

গর্ভাবস্থায় সামুদ্রিক খাবার এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। সামুদ্রিক খাবারে থাকে উচ্চ পরিমাণ মার্কারি। বেশি মাত্রার মার্কারি শিশুর স্নায়ু পদ্ধতি বৃদ্ধিকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। বিশেষজ্ঞরা যেসব সামুদ্রিক খাবারগুলো এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন, সেগুলো হলো : সার্ক, সোর্ড মাছ, কিং ম্যাকেরেল এবং টিলি মাছ। এর পরিবর্তে যেসব সামুদ্রিক খাবারগুলো খাদ্যতালিকায় রাখতে পারেন, সেগুলো হলো : স্যালমন, টিনজাত টুনা মাছ, বাগদা চিংড়ি, মাগুর মাছ। এসব খাবারে কম মার্কারি রয়েছে। তবে এগুলোও পরিমাণে কম খেতে হবে।     

২. অর্ধসিদ্ধ মাংস

মাছ বা মাংস যাই হোক না কেন, ভালোভাবে সিদ্ধ করে রান্না করুন। অর্ধসিদ্ধ মাছ, মাংস খাবেন না। সাধারণত অর্ধসিদ্ধ মাংস হট ডগে ব্যবহার করা হয়। যদি এ ধরনের খাবার খেতেই হয়, তবে মাংস ভালোভাবে সিদ্ধ ছিল কি না নিশ্চিত হয়ে নিন।  

৩. পাস্তুরিত করা হয়নি এমন খাবার

পাস্তুরিত করা হয়নি এ রকম খাবার গর্ভাবস্থায় এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। যেমন : পনির, দুধ, জুস ইত্যাদি। তবে পাস্তুরিত করা হলে এসব খাবার খাওয়া যাবে।

৪. ক্যাফেইন

ক্যাফেইন শরীরকে কখনো কখনো চাঙ্গা রাখে। চা, কফি ইত্যাদি হলো ক্যাফেইন-জাতীয় খাবার। গর্ভাবস্থায় অধিকাংশ সময় বাড়তি ক্লান্তি এবং অবসন্নতা কাজ করে। তবে এই ক্লান্তি দূর করতে ক্যাফেইন-জাতীয় খাবার খাওয়া উপকারের থেকে অপকারই বেশি করে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে ক্যাফেইন-জাতীয় খাদ্য ভেতরের শিশুকে প্রভাবিত করতে পারে। তাই গর্ভাবস্থায় ক্যাফেইন-জাতীয় খাবার খাওয়া কমিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

একজন গর্ভবতী মা প্রতিদিন ২০০ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন খেতে পারেন। এককাপ কফির মধ্যে রয়েছে ৯৫ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন এবং এক কাপ চায়ে রয়েছে ৪৭ মিলিগ্রাম ক্যাফেইন। 

৫. মদ্যপান

শিশুর বৃদ্ধিকে ব্যাহত করার আরেকটি মারাত্মক বেভারেজ হলো অ্যালকোহল। তাই শিশুর অঙ্গপ্রত্যঙ্গের বৃদ্ধি ভালো রাখতে মদ্যপান একেবারেই এড়িয়ে যেতে হবে। 

Advertisement