Beta

‘ডেট রেপ’ বিষয়টি কী?

১৮ আগস্ট ২০১৭, ১৪:৩৯ | আপডেট: ১৮ আগস্ট ২০১৭, ১৪:৪১

ফিচার ডেস্ক

‘ডেট রেপ’ শব্দটি এখন বহুল প্রচলিত। বিষয়টি আসলে কী? এ বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ২৮২৬তম পর্বে কথা বলেছেন ডা. এস এম আতিকুর রহমান। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে মনোরোগ বিদ্যা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান।

প্রশ্ন : এবিউসিভ রিলেশনের মধ্যে ‘ডেট রেপ’ বলে একটি শব্দ রয়েছে। বিষয়টি আসলে কী?

উত্তর : এবার ঢাকায় যে দুটো ঘটনা ঘটে গেল, সেগুলো আগের থেকে একটু ভিন্ন। এখানে একটি সম্পর্কের মধ্যেই রেপের (ধর্ষণ) বিষয়টি হয়ে গেল। যিনি রেপ করলেন, তিনি হয়তো বন্ধুমহলের মধ্যেই। 

আমাদের দেশে কিন্তু একটি পরিবর্তন আমরা লক্ষ করি। যেটা আগে ছিল না। সেই পরিবর্তনটি এমন, যেটি আসলে হবেই। কারণ, আমাদের দেশের নারীরা যখন স্বনির্ভর হতে শুরু করল, স্বাবলম্বী হতে শুরু করল, তখন কিন্তু তাঁরা নিজের প্রয়োজনটা মেটাতে পারেন। শুধু খাওয়া-পরার জন্য কিন্তু তিনি আর বিয়ে করেন না। তাঁর অর্থনৈতিক মুক্তি কিন্তু ব্যক্তিমুক্তির দিকেও নিয়ে গেল। তিনি তখন প্রয়োজন মনে করলেন, তাঁর সম্পর্ক দরকার। একটি বন্ধুর সঙ্গে মেশা দরকার। সঙ্গ বিষয়টি কিন্তু তাঁর মধ্যে প্রাধান্য পেল। তাঁর আগে যে সম্পর্ক ছিল, সেটি কিন্তু সিমবায়োটিক। স্বামী আমাকে খেতে দেয়, পরতে দেয় এ জন্য আমি স্বামীর সঙ্গে রয়েছি। এখন কিন্তু অনেক মেয়ের ক্ষেত্রে বিষয়টি এ রকম নয়। এখন তিনি একজন সঙ্গী চান। তাঁর মধ্যে সঙ্গ পাওয়ার একটি ইচ্ছা আসে। দেখা যায়, তাঁর মধ্যে সম্পর্ক গড়ার প্রবণতা আগের চেয়ে অনেক বেড়ে গেছে। 
আমি বেশ কিছু গবেষণায় দেখলাম, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আগের চেয়ে সম্পর্ক বেশি। এই হওয়াটার পেছনে কিন্তু নারীদের স্বাধীনতা বোধটাও কাজ করে। 

প্রশ্ন : এই যে ধর্ষণ হচ্ছে, সেটি তাহলে কেন? 

উত্তর : এখান থেকেই কিন্তু ডেটিংয়ের বিষয়টি চলে আসছে। আগে যেমন মেশার সুযোগ ছিল না, এখন কিন্তু অনেক মেশার সুযোগ তৈরি হচ্ছে। নির্দিষ্ট সময় গিয়ে একটি জায়গায় দেখা করছে। বাংলা ভাষায় বলতে গেলে আগে ‘অভিসার’ বলত। যদিও ‘অভিসার’ আসলে খুব বেশি প্রচলিত শব্দ নয়। তবে ছেলে-মেয়েতে দেখা হবে। যাদের মধ্যে সম্পর্ক রয়েছে, তারা তো দেখা করবেই। সেই দেখা করাটাকেই বলা হচ্ছে ডেট। 

দেখা করতে গিয়েই কিন্তু তিনি (নারী) এ ধরনের ঘটনার শিকার হচ্ছেন। টিনএজারদের মধ্যে একটি শব্দ বেশ প্রচলিত। সেটি হচ্ছে ‘রুম ডেট’। একটি পর্যায়ে গার্লফ্রেন্ড বয়ফ্রেন্ড যখন পরিচিত হয়ে যায়, তাঁরা মনে করেন সবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে একটু কথা বলা বা নির্জনতা প্রয়োজন। এই যে দেখা হওয়ার প্রয়োজনীয়তা তাঁদের মধ্যে দেখা দিল, সেখান থেকে কিন্তু তাঁরা ডেটিংয়ে যাচ্ছেন। 

বাইরের দেশেও যেটি চিন্তা করা হয়, স্থায়ী সম্পর্ক গড়ার আগে, তাঁরা বেশ কিছুদিন সময় নেন পরস্পরকে দেখার, কথা বলার। এটা আমাদের মধ্যেও চলে। তবে এ রকম একটি সময়ই আমাদের মধ্যে কিন্তু পর পর দুটো রেপের ঘটনা ঘটে গেছে। অনেকে ব্লেম করলেন যে মেয়েদের দোষ। তাঁরাই কেন যাবে? আসলে সম্পর্ক তো হবেই। তবে রেপের বিষয়টি ঠিক নয়।    

Advertisement