Beta

ঈদে প্রেক্ষগৃহে ‘গোয়েন্দাগিরি’

১৮ মে ২০১৯, ১৩:৪৭

আসন্ন ঈদে মুক্তি পাচ্ছে চলচ্চিত্র ‘গোয়েন্দাগিরি’।  তবে সারা দেশে নয়, সিনেপ্লেক্সগুলোতে ছবিটি মুক্তি দিতে চান পরিচালক। গতকাল ১৭ মে শুক্রবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের জহির রায়হান মিলনায়তনে ছবির মুক্তি উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেন ছবির পরিচালক নাসিম সাহনিক।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শেখ অ্যানি রহমান এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. মো. আবু হেনা মোস্তফা কামাল, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার,  বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য ও প্রযোজক  নেতা খোরশেদ আলম খসরু। আম্মাজান ফিল্মসের কর্ণধার মামুনুর ইসলাম ।

পরিচালক নাসিম সাহনিক বলেন,  “বেশ প্রস্তুতি নিয়ে বড় ধরনের প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করে ছবিটি নির্মাণ করা হয়েছে। ‘গোয়েন্দাগিরি’ হচ্ছে শখের গোয়েন্দাদের কাহিনী। বেশ সময় নিয়ে এই চলচ্চিত্রটির চিত্রনাট্যের কাজ করা  হয়। তারপর ধীরে ধীরে এগিয়ে চলে নির্মাণ প্রক্রিয়া। শুটিংয়ে ব্যবহার করা হয় বৈচিত্র্যময় লোকেশন। সম্প্রতি চলচ্চিত্রটি সেন্সরবোর্ড থেকে আনকাট সেন্সরশিপ পায়। আসন্ন ঈদে আমরা ছবিটি মুক্তির দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছি। তবে সারা দেশে নয়, সিনেপ্লেক্সগুলোতে আমরা ছবিটি মুক্তি দিতে চাই।”

প্রযোজক মামুনুর ইসলাম বলেন, “আম্মাজান ফিল্ম সিনেমা দর্শকদের জন্য রুচিশীল ও আকর্ষণীয় চলচ্চিত্র উপহার দিতে চায়। সেই প্রয়াস থেকেই নির্মাণ করা হয়েছে ‘গোয়েন্দাগিরি’ চলচ্চিত্রটি। চলচ্চিত্রটি শিশুকিশোরদের জন্য একটি অসাধারণ নির্মাণ। এটি এমন একটি চলচ্চিত্র যেটি কি না বড়দেরও শৈশবে ফিরিয়ে নিয়ে যাবে।”

প্রযোজক  নেতা খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘আপনারা সিনেমা হলে এসে ছবিটি দেখুন। এই প্রযোজন যদি সিনেমার টাকা ফেরত পায়, তবে তিনি আরেকটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করবেন। আমরা পাব নতুন আরেকটি চলচ্চিত্র।’

গোয়েন্দাগিরির গল্পে দেখা যায় , একদল টিনএজ ছেলেমেয়ে ছুটিতে বেড়াতে যাচ্ছে। তাদের একটি বিশেষ পরিচয় হচ্ছে তারা স্বপ্ন দেখে যে ভবিষ্যতে বড় গোয়েন্দা হবে। তাদের কারো আইডল শার্লক হোমস, কারো ফেলুদা, কারো তিন গোয়েন্দা, কারো আবার জেমস বন্ড। হঠাৎ মিডিয়াতে একটি পুরোনো ভূতুড়ে বাড়ি নিয়ে হৈচৈ পড়ে যায়। বনের মধ্যে অবস্থিত বাড়িটি নাকি অভিশপ্ত। অভিশপ্ত এই বাড়ির রহস্য উন্মোচনে ঝাঁপিয়ে পড়ে এই শখের গোয়েন্দারা। তাদের এই অভিযানে রহস্যের স্বাদ যেমন পাওয়া যাবে তেমনি পাওয়া যাবে টিনএজ খুঁনসুটি, টিনএজ রোমান্টিসিজম আরো কত কী!

চলচ্চিত্রটিতে বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন কল্যাণ কোরাইয়া, মিম চৌধুরি, সীমান্ত আহমেদ, শম্পা হাসনাইন,  কচি খন্দকার, তারেক মাহমুদ, টুটুল চৌধুরি, শিখা খান, তানিয়া বৃষ্টি, প্রিন্স প্রমুখ।

Advertisement