Beta

এক সিনেমায় তাঁর বেতন ৬৩০ কোটি টাকা!

০১ মে ২০১৯, ১৪:২৭

অনলাইন ডেস্ক
‘আয়রন ম্যান’ খ্যাত বিশ্বতারকা রবার্ট ডাউনি জুনিয়র। ছবি : সংগৃহীত

গোটা পৃথিবীতেই সুনামি বইয়ে দিচ্ছে মার্ভেল ফ্র্যাঞ্চাইজির ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এন্ড গেম’। এ ছবিতে আয়রন ম্যানের চরিত্রে অভিনয় করেছেন রবার্ট ডাউনি জুনিয়র। আগেও সুপারহিরো চরিত্রে অভিনয় করেছেন। বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় এ অভিনেতা। তাঁর অভিনীত সিনেমাও আয় করে হাজার হাজার কোটি টাকা। তাই ঘরেও যে বেশ মোটাসোটা চেক নিয়ে ফেরেন, বলার অপেক্ষা রাখে না।

কিন্তু এক সিনেমায় রবার্ট ডাউনি জুনিয়র কত টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছেন, জানেন?

মার্কিন সংবাদমাধ্যম হলিউড রিপোর্টারের বরাত দিয়ে ইন্ডিয়া টুডে প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ‘অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ার’ সিনেমার জন্য রবার্ট ডাউনি জুনিয়র পারিশ্রমিক নিয়েছেন ৭৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, বাংলাদেশের মুদ্রায় যার পরিমাণ ৬৩০ কোটি টাকা (এক মার্কিন ডলার সমান ৮৪ টাকা হিসাবে)।

সূত্রের খবর, ওই সিরিজের মোট আয়ের লভ্যাংশও নিয়েছেন ডাউনি জুনিয়র। আন্তর্জাতিক প্রকাশনাটি আরো জানিয়েছে, ‘স্পাইডার-ম্যান : হোমকামিং’ সিনেমার শুটিং চলাকালে দিনপ্রতি তিনি নিয়েছেন ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, অর্থাৎ ৪২ কোটি টাকা। তিন দিন শিডিউল ছিল তাঁর। খুব কম হলিউড তারকাই এক সিনেমায় ২০ মিলিয়ন ডলারের বেশি কামান, রবার্ট ডাউনি তাঁদের একজন। ‘আয়রন ম্যান’ সাফল্যের পর তাঁর পারিশ্রমিক বহুগুণে বেড়ে যায়।

আয়ে ‘মার্ভেল’ সহযাত্রী ক্রিস হেমসওর্থ ও ক্রিস ইভানস ডাউনি জুনিয়রের ধারেকাছেও নেই। তবে স্কারলেট জোহানসন ডাউনির মতোই ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পেয়েছিলেন ‘ইনফিনিটি ওয়ার’ সিনেমায় অভিনয় করে।

গত সপ্তাহে বিশ্বব্যাপী মুক্তি পায় ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এন্ড গেম’। ভারতেও আগুন ঝরাচ্ছে এ ছবি। রোমাঞ্চকর গল্প আর চরিত্রের বৈচিত্র্য সিনেপ্রেমীদের প্রেক্ষাগৃহমুখী করছে। আর এর প্রভাব পড়ছে আন্তর্জাতিক বক্স অফিসে। প্রতিবেদন বলছে, মুক্তির তিন দিনে আন্তর্জাতিক বক্স অফিসে ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এন্ড গেম’ আয় করেছে প্রায় ১.২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, বাংলাদেশের মুদ্রায় যার পরিমাণ ১০ হাজার কোটি টাকার বেশি।

মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্সের ২২ নম্বর ছবি ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এন্ড গেম’। ছবিতে রয়েছে হাল্ক, থোনস গমোরা, ক্যাপ্টেন আমেরিকাসহ হাজারো চরিত্র। যাঁরা ‘অ্যাভেঞ্জার্স : ইনফিনিটি ওয়ার’ দেখেছিলেন, তাঁদের মধ্যে ‘অ্যাভেঞ্জার্স : এন্ড গেম’ নিয়ে আগ্রহ আকাশছোঁয়া। এটিই অ্যাভেঞ্জার্সের শেষ সিরিজ।

Advertisement