‘আমাকে সবার চেনা উচিত’

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১৪:০৮

অনলাইন ডেস্ক
‘বদ্রিনাথ কি দুলহানিয়া’ অভিনেত্রী আকাঙ্ক্ষা সিং। ছবি : সংগৃহীত

অভিনেত্রী আকাঙ্ক্ষা সিং সহজ-সরল মেয়ে হিসেবেই পরিচিত। ‘না বোলে তুম না ম্যায়নে কুচ কাহা’ টেলিভিশন ধারাবাহিকে অভিনয় করে তিনি ‘সিম্পল গার্ল’ পরিচিতি পেয়েছেন। ‘বদ্রিনাথ কি দুলহানিয়া’ ছবি দিয়ে বলিউড ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অভিষেক তাঁর। এখন ঝুঁকেছেন দক্ষিণী চলচ্চিত্রে।

গত বছর এ অভিনেত্রীর তেলেগু ছবি ‘মাল্লি রাবা’ মুক্তি পেয়েছিল। এ মাসের শেষ দিকে তাঁকে ফের বড় পর্দায় দেখা যাবে, মুক্তি পাচ্ছে তাঁর অভিনীত ছবি ‘দেবদাস’। এ ছবিতে তাঁর বিপরীতে রয়েছেন নাগার্জুন। টেলিভিশন ধারাবাহিক, বলিউড, কন্নড় ও দক্ষিণী চলচ্চিত্রে কাজ করছেন আকাঙ্ক্ষা। একটি মাধ্যমে নিজেকে গণ্ডিবদ্ধ করতে চান না তিনি। কিন্তু তাঁর একমাত্র চাওয়া ভালো চরিত্র ও চিত্রনাট্য।

আকাঙ্ক্ষা এখন কন্নড় ছবি ‘পাইলান’-এর শুটিং নিয়ে ব্যস্ত। এ ছবিতে রয়েছেন বিখ্যাত বলিউড অভিনেতা সুনীল শেঠি। হায়দরাবাদে শুটিং চলছে, শেষ হবে অক্টোবরে।

এ অভিনেত্রী বলেন, ‘নিজেকে একটি মাধ্যমে আটকে রাখতে চাই না—হতে পারে টেলিভিশন, ওয়েব সিরিজ বা সিনেমা; যদিও আমি টেলিভিশন খুব মিস করি। আমি শুধু ভালো সঙ্গী খুঁজি, যা করি তা-ই উপভোগ করতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, ‘যখন থেকে চলচ্চিত্রে ভালো চরিত্র পাচ্ছি, তখন থেকে সত্যিই নতুন কিছু শেখাটা উপভোগ করছি। যদি টেলিভিশনেও একই রকম অফার পাই, আমি তা-ই আশা করব।’

নতুন ছবি নিয়েও কথা বলেন আকাঙ্ক্ষা। বলেন, ‘যখন দেবদাস ছবির অফার পাই, আমি সত্যিই চরিত্রটি পছন্দ করেছিলাম। এটা কমেডি ছবি, যেখানে নাগার্জুনের সঙ্গে আমার রোমান্টিক দৃশ্য রয়েছে। এটা খুবই মজার চরিত্র আর আমি তা উপভোগ করেছি।’

প্রথম কমেডি-অভিনয় নিয়ে তাঁর অভিজ্ঞতা কী। এ অভিনেত্রী বলেন, ‘পর্দায় আমি কখনো কমেডি করিনি। শুটিংয়ের সময় আমরা খুব মজা করেছি। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এটা হয়ে গেছে। এর জন্য আমাকে অতিরিক্ত চেষ্টা করতে হয়নি। করার পর মনে হয়েছে, আমি আরো কমেডি ছবিতে অভিনয় করব।’

তেলেগু ও কন্নড় চলচ্চিত্রে অভিনয় করার পরও ভাষা নিয়ে তাঁকে সমস্যায় পড়তে হয়নি। ‘আমার জন্য ভাষা কোনো বাধা হতে পারে না। এমনকি মারাঠি ও গুজরাটি ছবিতেও কাজ করব, যদি ভালো চিত্রনাট্য পাই। আমি চাই ভারতের সব রাজ্যের মানুষ আমাকে চিনুক (হেসে)। আমি তেলেগু শেখার পরিকল্পনা নিয়েছি। যখন আপনি ভাষা জানবেন, আপনি আপনার ১১০ শতাংশ দিতে পারবেন।’

সাউথ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি আকাঙ্ক্ষাকে বেশ ভালোভাবে গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, ‘তাঁরা সত্যিই স্বাগত জানাতে ভালোবাসে ও খুবই সহায়ক। আমি আমার সহ-অভিনেতাদের সঙ্গে উচ্চারণসহ অনেক কিছু নিয়ে কথা বলেছি। সেখানকার পরিবেশ খুব ভালো।’ খবর ডিএনএর।

আকাঙ্ক্ষার নিজ শহর জয়পুর। তিনি কি মিস করেন? আবেদনময়ী এ অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি সেখানে হোলি উৎসবে যেতাম। যদি আমাকে বেছে নিতে বলা হয়, তবে নিশ্চয়ই জয়পুর চলে যাব। শহরে এমন কিছু আছে, যা আমাকে যেতে উসকে দেয়। দিওয়ালিতে যাব, আমার আর তর সইছে না।’