কেন আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন আলিয়ার বোন?

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১২:৪৩

অনলাইন ডেস্ক
চলচ্চিত্র নির্মাতা মহেশ ভাট ও তাঁর বড় মেয়ে শাহিন ভাট (বাঁয়ে) এবং আলিয়া ভাট ও শাহিন (ডানে)। ছবি : সংগৃহীত

বলিউডের খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা ও অভিনেতা মহেশ ভাট আসন্ন ‘দ্য ডার্ক সাইড অব লাইফ : মুম্বাই সিটি’ ছবির প্রচারণা নিয়ে ব্যস্ত দিন পার করছেন। তিনি তারকা অভিনেত্রী আলিয়া ভাটের বাবা। বলেছেন, মানসিক অসুস্থতা নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে তাঁর দেশ ভারত এখনো পিছিয়ে আছে। ডিপ্রেসন বা বিষণ্ণতায় ভোগা মানুষের সংখ্যা বাড়ায় তিনি উদ্বিগ্ন। উদ্বিগ্ন আত্মহত্যাকারীর সংখ্যা বৃদ্ধিতেও। নিজের কন্যার আত্মহত্যাপ্রবণতা নিয়েও কথা বলেছেন তিনি।

আলিয়ার বড় বোন শাহিন ভাট। মহেশ ভাট বলেছেন, তাঁর মেয়ে শাহিন তীব্র বিষণ্ণতায় ভুগত। এমনকি আত্মহত্যাও করতে চেয়েছিল শাহিন।

একবার আলিয়া ভাট এ নিয়ে দুঃখ করে বলেছিলেন, ‘বিষণ্ণতা থেকে ফেরাতে আমার বোনকে কোনো সাহায্যই করতে পারিনি!’

মহেশ ভাট বলেন, ‘বিষণ্ণতা মানসিক অসুস্থতার একটি অংশ। যখন আপনি ডায়াবেটিসে ভুগবেন, আপনাকে ইনসুলিন নিতে হবে। একইভাবে যখন আপনি বিষণ্ণতায় ভুগবেন, আপনাকে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে, তিনি আপনাকে সুচিকিৎসা দেবেন। আমি মনে করি, আমাদের দেশে মানসিক অসুস্থতা নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে আমরা পিছিয়ে আছি। প্রায় প্রত্যেক পরিবারেই বিষণ্ণতায় ভোগা মানুষ আছে।’ 

উদাহরণস্বরূপ নিজের মেয়ে শাহিন ভাটের কথা বলেন এ চলচ্চিত্র নির্মাতা। বলেন, ‘আমার মেয়ে শাহিন, আলিয়ার বড় বোন; ১৬ বছর বয়সে তীব্র বিষণ্ণতায় আক্রান্ত হয়েছিল। অক্টোবরে তার স্মৃতিকথা প্রকাশিত হয়। সেখানে সে বলেছে, কী লড়াইয়ের ভেতর দিয়ে যেতে হয়েছে তাকে।’

মহেশ ভাট বলেন, শাহিন এমন অবস্থায় পৌঁছেছিল যে আত্মহত্যা করতে চেয়েছিল। ‘১২-১৩ বছর বয়সে সে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল। এটা আমার নিজের ঘরের সত্য ঘটনা। জিয়া খান একবার কাজের জন্য এসেছিল, কিন্তু ওই সময় আমরা তাঁর সঙ্গে কাজ করতে পারিনি। পরে যখন সে আত্মহত্যা করে, আমরা তার বাসায় গিয়েছিলাম। খুব খারাপ লেগেছিল,’ বলেন তিনি।

ব্রিটিশ-আমেরিকান অভিনেত্রী ও সংগীতশিল্পী জিয়া খান। তিনি ২০০৭ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেছেন। রাম গোপাল ভার্মার ‘নিঃশব্দ’ ছবি দিয়ে বলিউডে অভিষেক হয় তাঁর। অভিষেকে দুর্দান্ত অভিনয়ের জন্য তিনি ‘ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ড ফর বেস্ট ফিমেল’ মনোনয়ন পেয়েছিলেন। ‘গজিনি’ ও ‘হাউসফুল’ ছবিতেও অভিনয় করেন তিনি। ২০১৩ সালে মুম্বাইয়ের জুহুতে নিজ বাসায় সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর মরদেহ পাওয়া যায়।

মহেশ ভাটের দুই মেয়ে শাহিন ও আলিয়া এবং তাঁর স্ত্রী সোনি রাজদান। ছবি : সংগৃহীত

শাহিন ভাট অল্প বয়স থেকেই তীব্র বিষণ্ণতায় ভুগছিলেন। অনেক লড়াই করতে হয়েছে তাঁকে। তিনি জানেন, বিষণ্ণতা মানুষকে কোথায় পৌঁছে দেয়। জনপ্রিয় ফ্যাশন ম্যাগাজিন ‘ভোগ’-এর এক নিবন্ধে লিখেছিলেন, ‘১২ বছর বয়স থেকেই বিষণ্ণতায় ভুগছিলাম। একাধিকবার আত্মহত্যার চেষ্টাও করেছি।’

শহিনের ছোট বোন তারকা অভিনেত্রী আলিয়া ভাট। তিনি এর আগে বলেছিলেন, ‘আমরা যাঁরা তাঁর (শাহিন) কাছের মানুষ, সবাই ব্যাপারটা জানি। এমন নয় যে শাহিন এ ব্যাপারে এর আগে কিছু বলেনি। বিষণ্ণতার পাশাপাশি আমার বড় বোনের ইনসমনিয়া (অনিদ্রা) ছিল। আমরা ঘুমহীন বহু রাত কথা বলে কাটিয়েছি।’

চলচ্চিত্রশিল্পে টিকে থাকতে খুব চাপের মধ্য দিয়ে যেতে হয়। মহেশ ভাট বলেন, ‘এটা হাই-স্ট্রেস ব্যবসা। এ কারণে খুব বেশি মানুষ এ ব্যবসা করেন না।’ তিনি আরো বলেন, এ শিল্পের মানুষকে সব সময় দর্শকের প্রতিক্রিয়ার ওপর নির্ভর করতে হয়। মেজাজ-মর্জিও তিরিক্ষি থাকে। আর তা বিষণ্ণতা তৈরি করে। খবর হিন্দুস্তান টাইমস ও ডিএনএর।

মহেশ ভাট অভিনীত ‘দ্য ডার্ক সাইড অব লাইফ : মুম্বাই সিটি’র ট্রেইলার মুক্তি পেয়েছে। গত সোমবার মুম্বাইয়ে ওই অনুষ্ঠানে তিনি গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সহ-অভিনেতা নিখিল রত্নপারাখি, আলিশা খান, পরিচালক তারিক খান, প্রযোজক রাজেশ পরদাসানি। ছবির মূল উপজীব্য ভারতের সমাজে একাকিত্ব, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও মানসিক স্বাস্থ্য।

‘দ্য ডার্ক সাইড অব লাইফ : মুম্বাই সিটি’ ছবির ট্রেইলার