Beta

‘ছাত্রলীগের কাউকে দেখতে পান না?’

৩১ আগস্ট ২০১৮, ১৯:৫২

বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেতে চান বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ। ছবি : সংগৃহীত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আরবি বিভাগে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ পেতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্যকে এক প্রার্থী হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

অভিযুক্ত প্রার্থীর নাম আবুল কালাম আজাদ। ঢাবি শাখা ছাত্রলীগের সাবেক এই সহসভাপতি হুমকি দেওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন। তবে হুমকি পাওয়া ঢাবির উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ অভিযোগের বিষয়টি সঠিক বলে দাবি করেছেন।

জানা যায়, প্রভাষক পদে তিনজনকে নিয়োগ দেওয়ার জন্য গত মঙ্গলবার ও বুধবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে মৌখিক পরীক্ষা নেয় ঢাবির আরবি বিভাগ। শেষ দিন সকালে মৌখিক পরীক্ষা চলার সময়ে প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ নিয়োগ পাওয়ার জন্য ছাত্রলীগের ১০ থেকে ১২ জন নেতাকর্মী নিয়ে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসরিন আহমাদকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।

এ সময় উপ-উপাচার্যকে উদ্দেশ করে ঢাবি ছাত্রলীগের সাবেক সহসভাপতি আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আপনি বিভাগের জামায়াত-শিবিরের ছেলেদের নিয়োগ দিচ্ছেন কেন? ছাত্রলীগের কাউকে দেখতে পান না। আপনি যাদের নিয়োগ দিচ্ছেন, তাদের বিরুদ্ধে সরকারবিরোধী বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের অভিযোগ আছে।’

আবুল কালাম আজাদ তখন নিজেকে ছাত্রলীগের ঢাবি শাখার সহসভাপতি বলে পরিচয় দেন। এ সময় সঙ্গে থাকা ছাত্রলীগের বিভিন্ন শাখার নেতাকর্মীরা উপ-উপাচার্যের সাথে অশ্লীল ভাষায় কথা বলেন বলে জানা যায়।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ বলেন, তারা ১০ থেকে ১২ জনের আমার কাছে এসেছিল। তারা জানতে চাচ্ছিল, আমরা কাদেরকে নিয়োগ দিচ্ছি। কিন্তু এটা তাদের জানার বিষয় নয়। কাদের নিয়োগ দেব, এটা আমাদের সিদ্ধান্ত। কিন্তু তাদের মধ্যে ইতিহাস বিভাগের একটা ছেলে উদ্ধত আচরণ করে। আমি সবার নাম-পরিচয় জানি না। তবে তাদের আচরণ ছাত্রদের মতো ছিল না। কিন্তু আমি তাদের ঠাণ্ডা মাথায় বুঝিয়েছি।

অভিযোগের বিষয়ে আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘উপ-উপাচার্যের সঙ্গে আমার কোনো কথাই হয়নি। কেউ যদি এটা প্রমাণ করতে পারে, তাহলে আমি রাজনীতি ছেড়ে দিয়ে ক্যাম্পাস থেকে বের হয়ে যাব।’

অভিযোগের বিষয়ে আরবি বিভাগের চেয়ারম্যান ও নিয়োগ বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ইউছুফ বলেন, ‘আমি অভিযোগের বিষয়ে কিছু বলতে পারব না। তাছাড়া নিয়োগের বিষয়ে আমার কোনো হাত নেই।’

একই নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা কয়েক মাস আগে বাতিল হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যাপক ইউছুফ বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে কিছু বলতে পারব না।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement