Beta

ফেসবুকে স্ট্যাটাস : ঢাবির তিন শিক্ষার্থীকে মারধর, পুলিশে সোপর্দ

০৭ আগস্ট ২০১৮, ১৫:১১

বিশ্ববিদ্যালয় সংবাদদাতা

‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনে অংশগ্রহণ ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছয় শিক্ষার্থীকে মারধর করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তাঁদের মধ্যে তিন ছাত্রকে পুলিশে দিয়েছেন তাঁরা।

গতকাল সোমবার দিবাগত মধ্যরাতে ঢাবির ফজলুল হক মুসলিম হলে এ ঘটনা ঘটে।

মারধরকারীরা ফজলুল হক মুসলিম হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার সিদ্দিক সিসিমের অনুসারী বলে জানা যায়। তাঁরা হলেন হল শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রাকিব এবং পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের সুফি, শামীম ও নাঈম।

জানা যায়, ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আন্দোলনে অংশগ্রহণ করা ও তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেওয়ার অভিযোগে গণিত বিভাগের তারিকুল ইসলাম, তথ্য ও প্রযুক্তি ইনস্টিটিউটের মশিউর রহমান সাদিক, ফলিত রসায়ন ও কেমিকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের সাদ্দাম হোসেন, তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের প্রথম বর্ষের ওমর ফারুক, বায়োকেমিস্ট্রি ও মোলিকুলার বায়োলজি বিভাগের জাহিদ ও ফিজিক্সের জোবাইদুল হক রনিকে মারধর করে ছাত্রলীগের এ নেতাকর্মীরা। তাঁদের মধ্যে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়ায় তারিকুল, সাদ্দাম ও রনিকে পুলিশে দেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘তাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে থানায় দেওয়া হয়েছে। পুলিশকে বলা হয়েছে যদি তাদের বিরুদ্ধে কোনো সুনির্দিষ্ট প্রমাণ না পায়, তবে ছেড়ে দিতে।’

এ বিষয়ে হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি শাহরিয়ার সিদ্দিক সিসিম বলেন, ‘ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর প্রমাণ পেয়েছি। তাই তাদের পুলিশে দেওয়া হয়েছে।’ মারধরের বিষয়টি স্বীকার করে তিনি বলেন, ‘গুজবের বিষয়টি তারা স্বীকার না করায় তাদের মারধর করা হয়েছে।’

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান বলেন, ‘ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তিনজনকে থানায় দেওয়া হয়েছে। আমরা তদন্ত করে দেখব।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement