Beta

সরকার বিএনপির নাম শুনলেই ভয় পাচ্ছে : সেলিমা রহমান

১২ অক্টোবর ২০১৯, ১৮:২২

ফরিদপুর শহরের অম্বিকা মেমোরিয়াল হলে সমাবেশ করতে না পেরে ফিরে যাচ্ছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফসহ অন্যরা। ছবি : এনটিভি

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমান বলেছেন, বর্তমান সরকার দেশের স্বার্থ বিরোধী কোনো চুক্তি করলে বিএনপি ঘরে বসে থাকবে না। তিনি বলেন, এই সরকার বিএনপির নাম শুনলেই ভয় পাচ্ছে। যে কারণে তারা বিএনপির সব কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে। আমরা গণতান্ত্রিক কর্মসূচি করছি। কিন্তু এই সরকার গণতান্ত্রিক সেই কর্মসূচিকেও প্রশাসন যন্ত্রকে ব্যবহার করে বন্ধ করে দিচ্ছে।

বুয়েটের মেধাবীছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে

বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি ফরিদপুরে পালন করতে না দেওয়ার প্রতিবাদে ফরিদপুর শহরের ওয়াপদা রেস্ট হাউসে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন সেলিমা রহমান।

এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, বিএনপির ফরিদপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ ইসলাম রিংকু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, খন্দকার মাশকুর রহমান মাসুক, মো. সেলিম হোসেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ইয়াসমিন আরা হক, যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা মাহাবুবুল হাসান পিংকু, জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সৈয়দ মোদারেস আলী ইছা, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ জুলফিকার হোসেন জুয়েল, জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি আফজাল হোসেন খান পলাশ, শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিরাজ হোসেন, কোতোয়ালি থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী নাজমুল হাসান রঞ্জন, জেলা যুবদলের সভাপতি রাজীব হোসেন, সাধারণ সম্পাদক মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সৈয়দ আদনান হোসেন অনু, সাধারণ সম্পাদক তামজিদুল হাসান কায়েস প্রমুখ। 

এর আগে বিকেল ৩টায় ফরিদপুর শহরের অম্বিকা মেমোরিয়াল হলে কেন্দ্র ঘোষিত প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সভায় যোগদানের উদ্দেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সেলিমা রহমানসহ নেতারা সভাস্থলে এসে পুলিশের বাধায় ফিরে যেতে বাধ্য হন।

বিএনপির ফরিদপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ রিংকু বলেন, আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে বিএনপি কেন্দ্র থেকে সারা দেশে প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করে। কেন্দ্রের কর্মসূচির অংশ হিসেবে ফরিদপুর জেলা বিএনপি উদ্যোগে শহরের অম্বিকা হলে সভার আয়োজন করা হয়। পুলিশের অনুমতিও নেওয়া হয়। কিন্তু সভার কিছুক্ষণ আগে বিপুল সংখ্যক পুলিশ এসে সভাস্থল ঘিরে রাখে এবং সভার অনুমতি বাতিল করা হয়েছে বলে জানায়।

Advertisement