ফের মুক্ত আকাশে ডানা মেলল টিয়াপাখিগুলো

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৯:৩৩

পাবনায় বিক্রি করার সময় জব্দ করা টিয়াপাখিগুলো খাঁচা থেকে মুক্ত করে দেন জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ। ছবি : এনটিভি

পাবনায় প্রকাশ্যে টিয়া পাখি বিক্রি করার সময় এক ব্যক্তিকে আটক করে পাখিগুলো জব্দ করা হয়। আজ শুক্রবার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে টিয়া পাখিগুলোকে খাঁচা থেকে মুক্ত আকাশে অবমুক্ত করেন জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জয়নাল আবেদীন জানান, শহরের সোনাপট্টি এলাকায় মল্লিক বেদে নামে এক আদিবাসী ব্যক্তিকে বিক্রয়নিষিদ্ধ টিয়াপাখি বিক্রি করতে দেখে আটক করে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণভিত্তিক সংগঠন ‘নেচার অ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনজারভেশন কমিউনিটি’র সদস্যরা। তাঁদের কাছ থেকে খবর পেয়ে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত পাখিগুলো নিজ হেফাজতে নিয়ে বিক্রেতা আশি মল্লিককে আটক করে।

ওই পাখি বিক্রেতা নিজের সাংসারিক অভাবের বিষয়টি তুলে ধরে ভবিষ্যতে আর কখনোই পাখি বিক্রি করবে না শপথ করে জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদের কাছে নিশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করেন। জেলা প্রশাসক বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে নগদ এক হাজার টাকা দিয়ে পাখিগুলো কিনে মুক্ত আকাশে ছেড়ে দেন।

নেচার অ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনজারভেশন কমিউনিটির সভাপতি এহসান বিশ্বাস লিঠু বলেন, ‘প্রচলিত আইনে নিষিদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও পাবনাসহ সারা দেশে প্রকাশ্যে বন্যপ্রাণী ও পাখি বিক্রি হওয়ায় জীববৈচ্যিত্র হুমকিতে পড়ছে। বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে দেশি প্রজাতির অনেক পাখি। কেবল প্রশাসনের দিকে তাকিয়ে না থেকে পরিবেশ বাঁচাতে ও জীববৈচিত্র্য রক্ষায় সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। টিয়া পাখিগুলো অবমুক্ত করতে উদ্যোগ নেওয়ায় আমরা জেলা প্রশাসকের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

পাবনা জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ বলেন, ‘নেচার অ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনজারভেশন কমিউনিটির সদস্যরা প্রশাসনের সাহায্য চাইলে আমরা তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিয়ে পাখিগুলো অবমুক্ত করেছি। এভাবে সবাই সচেতন হলে বন্যপ্রাণী ও দেশীয় প্রজাতির পাখিকে বিলুপ্তির হাত থেকে রক্ষা করা সম্ভব হবে।’