Beta

‘ডাকাত’ রফিক হত্যা মামলা

ভৈরবে নিরপরাধ ব্যক্তিদের পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে বিক্ষোভ

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২২:৪২

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে রফিক হত্যা মামলায় এলাকার নিরপরাধ ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার সকালে ভৈরব বাসস্ট্যান্ডের দুর্জয় মোড়ে মানববন্ধন করা হয়। ছবি : এনটিভি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবের কুখ্যাত আন্তজেলা গরুচোর চক্রের প্রধান ও ডাকাত রফিক হত্যা মামলায় এলাকার নিরপরাধ ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন, প্রতিবাদ সভা ও বিক্ষোভ করেছে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার কয়েক হাজার নারী-পুরুষ। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-ভৈরব-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভৈরব বাসস্ট্যান্ডের দুর্জয় মোড়ে এই কর্মসূচি পালন করা হয়।

কর্মসূচিতে থাকা বক্তারা বলেন, রফিক পুলিশের কাছে কুখ্যাত গরুচোর ও ডাকাত হিসেবে তালিকাভুক্ত ছিল এবং এলাকাবাসীর কাছে ছিল আতঙ্ক ও ঘৃণিত ব্যক্তি। তার জীবদ্দশায় এসব অপকর্মের কোনো প্রতিবাদ করতে পারেননি এলাকাবাসী। তাঁকে হত্যা করার মতো শক্তি পাবে কোথা থেকে? অথচ সেই রফিক হত্যা মামলায় এলাকার গণ্যমান্য, শিক্ষানুরাগী, দানশীল ব্যক্তিসহ নিরীহ এলাকাবাসীর নামে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে এবং অভিযুক্তরা পুলিশি হয়রানির শিকার হচ্ছে। তারা এর তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানায়।

বক্তারা আরো বলেন, তারা পুলিশের বিরুদ্ধে নয় এবং পুলিশি কাজে বাধাও হতে চায় না। তাদের দাবি এই মামলায় নিরীহ কোনো মানুষ যেন অযথা হয়রানির শিকার না হয়। আর যদি হয়, তবে তারা বাধ্য হবে পুলিশের এবং ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে।

বক্তারা দাবি করেন, রফিক যত বড় কুখ্যাত চোর বা ডাকাত হোক না কেন, তারা তার এমন মৃত্যু কামনা করেননি। প্রত্যেক মানুষেরই আইনি অধিকার রয়েছে। রফিকেরও ছিল। তাকে আইনের হাতে সোপর্দ না করে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। তারা এ হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানান। সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিচার চান। পাশাপাশি তারা সব ষড়যন্ত্রকারী এবং রফিকের সহযোগী, সুবিধাভোগী ও নেপথ্য চালিকা শক্তিরও বিচার দাবি করছেন।

প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য দেন ভৈরব পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিক আহমেদ সৌরভ, উপজেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. মিজানুর রহমান কবির, শিমুলকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক চেয়ারম্যান মো. বাবুল মিয়া, আগানগর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান সেলিম আহম্মেদ, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আব্দুস সালাম, শিক্ষানুরাগী আব্দুল লতিফ ও ছাত্রলীগ নেতা রিপন ভূঁইয়া।

ডা. আউয়ালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই প্রতিবাদ সভায় আরো  বক্তব্য দেন হাজি লতিফ মিয়া, ফারুক আহমেদ, মস্তো মোল্লা, হাজি গোলাপ মিয়া ও শামীম কবির।

পরে বিক্ষভকারীরা মহাসড়ক অবরোধ করে। এ সময় মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। তীব্র যানজটের কারণে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করে।

প্রতিবাদ সভার পুলিশের হয়রানির বিষয়ে জানতে চাইলে ভৈরব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. বাহালুল খান বাহার বলেন, মামলাটি ইতিমধ্যে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) ন্যস্ত করা হয়েছে। সুতরাং পুলিশের বিরুদ্ধে হয়রানির দাবি ভিত্তিহীন।

ভৈরবের শিমুলকান্দি ইউনিয়নের মধ্যেরচর গ্রামের মরহুম কালাগাজী মেম্বারের ছেলে রফিককে গত ২০ আগস্ট মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে শিবপুর ইউনিয়নের টানকৃষ্ণনগর এলাকায় একদল দুর্বৃত্ত কুপিয়ে হত্যা করে। এই ঘটনায় রফিকের স্ত্রী চায়না বেগম বাদী হয়ে ২২ আগস্ট ২৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ১০ থেকে ১২ জনকে আসামি করে ভৈরব থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

Advertisement