Beta

ফেসবুক এনগেজমেন্টে বাংলাদেশের গণমাধ্যমে সবার ওপরে এনটিভি

২৪ আগস্ট ২০১৯, ১৮:১৩

নিজস্ব প্রতিবেদক

ফেসবুক এনগেজমেন্টে বাংলাদেশের টেলিভিশন, সংবাদপত্র, অনলাইনসহ সব গণমাধ্যমের মধ্যে সবার ওপরে রয়েছে এনটিভি। পাঠকের রিঅ্যাকশন (লাইক, লাভ, স্মাইল, ওয়াও, ক্রাই, অ্যাংরি) এবং কমেন্ট ও শেয়ারকে একত্রিত করে এনগেজমেন্ট হিসাব করে ফেসবুক। গত এক সপ্তাহের হিসাবে এনটিভির ফেসবুক এনগেজমেন্ট ১৫ দশমিক ৩ মিলিয়ন (১ কোটি ৫৩ লাখ)। এনটিভির পরের অবস্থান দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার। তাদের এনগেজমেন্ট ৫ দশমিক ৭ মিলিয়ন অর্থাৎ ৫৭ লাখ।

আজ শনিবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের এক পরিসংখ্যানে জানা গেছে, গত সপ্তাহের চেয়ে এনটিভির ফেসবুক পেজে পাঠকসাড়া বেড়েছে শূন্য দশমিক ২ শতাংশ।

এনটিভি অনলাইনের ফেসবুক পেজে এখন পর্যন্ত এক কোটি ৯ লাখেরও বেশি লাইক রয়েছে। এই পেজ থেকে প্রতিদিন গুরুত্বপূর্ণ খবরের পাশাপাশি ব্রেকিং নিউজ, ছবি, ভিডিও ও নাটক শেয়ার করা হয়।

এদিকে জনপ্রিয় সামাজিক মাধ্যম ইউটিউবেও তুমুল জনপ্রিয় এনটিভি অনলাইন। অল্প সময়েই ১৯টি চ্যানেলে মোট সাবস্ক্রাইবার পেরিয়েছে ৬৬ লাখ। আর স্বীকৃতিস্বরূপ ইউটিউব কর্তৃপক্ষ এনটিভি অনলাইনকে দিয়েছে ১০টি পুরস্কার। বাংলাদেশের বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর মধ্যে এনটিভিই প্রথম ইউটিউবের ১০টি ক্রেস্ট পেয়েছে। এর মধ্যে ‘এনটিভি নাটক’ চ্যানেল গত বছর পেয়েছে ‘গোল্ডেন প্লে বাটন’ ক্রেস্ট। এখন এ চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবারের সংখ্যা ২১ লাখ ৬৬ হাজারের বেশি।

বিশ্বজুড়ে মুঠোফোন-বিপ্লবের পর তথ্যে, বিনোদনে শ্রেণিব্যবধান কমে এসেছে। এখন শুধু অভিজাতরাই নয়, প্রান্তিক মানুষের হাতেও স্মার্টফোন। অন্তর্জাল সহজতম হওয়ায় যে কেউ যেকোনো কিছু মুহূর্তে মুঠোফোন-পর্দায় পেতে পারেন, তিনি যা চান—তথ্য, বিনোদনসহ জানা-অজানা নানা কিছু। আর পাঠক-দর্শকের আগ্রহ মেটাতে এনটিভি অনলাইনও সমানতালে তৈরি করছে নানা আধেয়। মিলছে একের পর এক স্বীকৃতি।

ফেসবুক ও ইউটিউবে জনপ্রিয়তাসহ সার্বিক কার্যক্রম প্রসঙ্গে এনটিভি অনলাইনের প্রধান ফকরউদ্দীন জুয়েল বলেছেন, পাঠক ও দর্শকদের বিপুল ভালোবাসার কারণেই এনটিভির ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলগুলো জনপ্রিয়তার শীর্ষ ছুঁয়ে যাচ্ছে। আর দর্শকদের কথা মাথায় রেখে এনটিভিও প্রতিনিয়ত রুচিশীল, গুণসম্পন্ন সব আধেয় জোগান দিয়ে চলেছে। দর্শকই এ পথচলার পাথেয়।

Advertisement