Beta

চট্টগ্রামে মদপানে তিন যুবকের মৃত্যু

১৫ আগস্ট ২০১৯, ১৬:৩৬ | আপডেট: ১৫ আগস্ট ২০১৯, ১৯:১৬

চট্টগ্রাম শহরে বিষাক্ত মদপানে মৃত মিল্টন বণিক ও শাওন মজুমদারের মরদেহ। ছবি : এনটিভি

চট্টগ্রাম শহরের আকবর শাহ থানা এলাকায় বিষাক্ত মদ পান করে তিন যুবকের মৃত্যু হয়েছে। গত মঙ্গলবার কৈবল্যধাম মালিপাড়া এলাকায় বন্ধুর বাসায় মদ পান করার পর বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হন তাঁরা। পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে গতকাল বুধবার রাতে একজন ও আজ বৃহস্পতিবার সকালে দুজনের মৃত্যু হয়।

নিহত যুবকরা হলেন বিশ্বজিৎ মল্লিক, শাওন মজুমদার ও মিল্টন বণিক। এ ঘটনায় অসুস্থ উজ্জ্বল বণিক একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

নিহত শাওন গ্ল্যাক্সো স্মিথক্লাইন (জিএসকে) বাংলাদেশ লিমিটেডে কম্পিউটার অপারেটর পদে কাজ করতেন। কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পর থেকে তিনি বেকার ছিলেন।

নিহতদের স্বজন ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, কৈবল্যধাম মালিপাড়া নিবাসী বিশ্বজিৎ মল্লিকের বাসায় গত মঙ্গলবার রাতে কয়েকজন বন্ধু মিলে মদপান করেন। এতে চারজন বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হলে গতকাল চমেক হাসপাতালে তাঁদের ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনজনের মৃত্যু হয়।

নিহত শাওন মজুমদারের মা দীপ্তি রানী জানান, মঙ্গলবার রাতে পূজার ছাগল কেনার কথা বলে ঘর থেকে বের হন শাওন। রাতে বিশ্বজিতের বাসায় কোকা-কোলার বোতলে মদপান করেন তিনি। গতকাল সকাল থেকে একাধিকবার বমি করেন শাওন। পরে রাতে তাঁকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তাঁর।

দীপ্তি রানীর অভিযোগ, ‘তাঁর ছেলে শাওনকে হাসপাতালে নেওয়ার পর পুলিশ ও চিকিৎসকরা শুধু জেরা করেছেন। কিন্তু চিকিৎসা দেওয়া হয়নি। চিকিৎসকদের হাতে-পায়ে ধরে কান্নাকাটি করেছি, তবু কাজ হয়নি।’

একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন উজ্জ্বল বণিকের বাবা মন্টু বণিক বলেন, ‘আমার ছেলে মদে আসক্ত ছিল না। বন্ধুদের অনুরোধে মদপান করেছে সে। তার অবস্থা এখন আশঙ্কাজনক। সৃষ্টিকর্তা সহায় হলে সুস্থ হবে।’

মন্টু বণিক দাবি করেন, নিহত বিশ্বজিতের ভাই মদগুলো কিনে এনেছিলেন। তিনি এখন পলাতক।

Advertisement