Beta

ভালোবেসে বিয়ে, সাত দিনের মাথায় মিলল গৃহবধূর লাশ

১৬ জুলাই ২০১৯, ০৮:২২ | আপডেট: ১৬ জুলাই ২০১৯, ০৯:২৭

নিজস্ব সংবাদদাতা

ঢাকার মিরপুর শাহআলী এলাকায় হোসনে আরা (১৯) নামের এক গৃহবধূর গলায় ওড়না ও গামছা পেঁচানো অবস্থায় মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত নারীর দুলাভাইকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ। এক সপ্তাহ আগে ওই নারীর বিয়ে হয় বলে জানায় পুলিশ।

গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সংবাদ পেয়ে মিরপুর শাহআলী গুদারাঘাট ব্লক-এইচ, রোড-৭, বাড়ি-২১ ঠিকানার একটি টিনশেড বাড়ি থেকে ওই গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শাহআলী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) খন্দকার মনিরুজ্জামান  জানান, স্বামী হাসেমকে নিয়ে হোসনে আরা ভাড়া থাকতেন। নিহত গৃহবধূ ছিলেন পোশাক শ্রমিক এবং তাঁর স্বামী কসাইয়ের কাজ করতেন। হোসনে আরার পৈতৃক বাড়ি শরীয়তপুর জেলার গোসাইরহাট উপজেলায়।

এসআই খন্দকার মনিরুজ্জামান আরো জানান, টিনশেড বাড়িটিতে গিয়ে দেখা যায়, গৃহবধূ হোসনে আরার গলায় গামছা ও ওড়না দিয়ে গিঁট দেওয়া এবং খাটের পায়া ও খুঁটির সঙ্গে বাঁধা। মৃতদেহের এ অবস্থা দেখে পুলিশ ধারণা করছে, ওই নারীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, ছয় মাস প্রেম করার পরে এক সপ্তাহ আগে হাসেম হোসনে আরাকে বিয়ে করেন। বিয়ের পরপরই ওই টিনশেড ঘরটি ভাড়া নিয়ে তাঁরা বসবাস করতে থাকেন। রাতে আশপাশের বাসিন্দাদের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে। পুলিশ আশপাশের লোকজনের কাছে জানতে পারে, সকালে হোসনে আরার দুলাভাই বাসায় এসেছিলেন। এ কারণে নিহত নারীর দুলাভাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ হত্যাকাণ্ডের বিস্তারিত জানার চেষ্টা করা হচ্ছে বলেও জানায় পুলিশ।

ময়নাতদন্তের জন্য ওই নারীর মৃতদেহ শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Advertisement