Beta

‘রিফাত হত্যা মামলার তদন্ত নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবেই হচ্ছে’

১৪ জুলাই ২০১৯, ১৭:০৬

নিজস্ব প্রতিবেদক
সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ছবি : এনটিভি

বরগুনার চাঞ্চল্যকর রিফাত হত্যার তদন্ত নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ‘নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবেই আলোচিত এ হত্যা মামলার তদন্ত হচ্ছে। খুব দ্রুততার সাথেই তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে পেশ করা হবে বলে আশা করছি। তদন্ত শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত এ নিয়ে কিছু বলা যাবে না।’

আজ রোববার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

গতকাল শনিবার রিফাতের বাবা সংবাদ সম্মেলন করে মিন্নির গ্রেপ্তার দাবি করেন। তিনি (রিফাতের বাবা) মিন্নিকে রিফাত হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে উল্লেখ করে তার শাস্তি দাবি করেছেন। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের আরো বলেন, ‘এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ মামলা হিসেবে আমাদের নজরে রয়েছে। তদন্ত শেষ হলেই সব কিছু পরিষ্কার হয়ে যাবে।’

গতকাল শনিবার রাত ৮টার দিকে বরগুনা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিফাত শরীফকে কুপিয়ে খুন করার ঘটনায় পুত্রবধূ আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে দায়ী করেছেন রিফাতের বাবা দুলাল শরীফ।

দুলাল শরীফ বলেন, ‘রিফাত শরীফের সাথে বিয়ের সময় কুখ্যাত সন্ত্রাসী নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নির বিয়ের ঘটনা মিন্নি ও তার পরিবার সুকৌশলে এড়িয়ে গেছেন। রিফাতের সাথে বিয়ের পরও মিন্নি নয়নের বাসায় যাওয়া আসাসহ নিয়মিত যোগাযোগ করতো। একই ধারাবাহিকতায় রিফাত হত্যাকাণ্ডের ঘটনার আগের দিন সকাল ৯টায় এবং সন্ধ্যায় মিন্নি নয়নের বাসায় যায়। মিন্নি অন্যদিন রিফাতকে ছাড়াই কলেজে গেলেও ঘটনার দিন রিফাতকে সাথে নিয়ে কলেজে যায়। ঘটনার দিন রিফাত কলেজ থেকে মিন্নিকে নিয়ে চলে আসতে চাইলেও মিন্নি তার সাথে না এসে কালক্ষেপণ করতে থাকে।’ তিনি আরো বলেন, ‘স্বামী রিফাত শরীফ যখন আহত ও রক্তাক্ত অবস্থায় একা একা রিকশায় করে হাসপাতালে যাচ্ছিল তখন মিন্নি তার ব্যাগ ও স্যান্ডেল গোছানোর কাজেই বেশি ব্যস্ত ছিল। এ ছাড়া আসামিদের একজন রাস্তা থেকে ব্যাগ তুলে মিন্নির হাতে দেয়। রিফাত শরীফকে অ্যাম্বুলেন্সে করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার সময়ও মিন্নি রিফাতের সাথে যায়নি।’

দুলাল শরীফ প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ প্রশাসনের কাছে দাবি জানান যে, পুলিশ মিন্নিকে গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রকৃত রহস্য বেরিয়ে আসবে।

রিফাতের বাবার এ বক্তব্যের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে, তদন্ত শেষ না হলে এ বিষয়ে কিছুই বলা যাবে না বলে মন্তব্য করেন।

Advertisement