Beta

শিগগিরই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চান ফখরুল

২২ জুন ২০১৯, ১৩:২১ | আপডেট: ২২ জুন ২০১৯, ১৪:৩৫

নিজস্ব সংবাদদাতা
দলের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধি সৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি : এনটিভি

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, খালেদা জিয়ার মুক্তি ও গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মধ্য দিয়ে শিগগিরই একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে হবে।

দলের স্থায়ী কমিটিতে নতুন অন্তর্ভুক্ত হওয়া বেগম সেলিনা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর সঙ্গে আজ শনিবার সকালে দলের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধি সৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন।

এ সময় দলীয় কাউন্সিল নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের জেলা কমিটিগুলো পুনর্গঠনের কাজ চলছে। এ কাজ শেষ হলেই দলীয় জাতীয় কাউন্সিলের কাজ শুরু হবে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বিএনপির চেয়ারপারসনের অনুপস্থিতিতে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী স্থায়ী কমিটির সদস্য ও গুরুত্বপূর্ণ পদে প্রয়োজন হলে মনোনয়ন দিতে এবং নির্বাচিত করতে পারবেন। দলের কাউন্সিলেই তাঁকে এ ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় দলের স্থায়ী কমিটিতে যে শূন্য পদগুলো ছিল সেখানে দলের দুজন প্রবীণ নেতাকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।’

‘যাদের নতুন করে দলের স্থায়ী কমিটিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে তাদের দলের মধ্যে এবং জাতীয়ভাবে ইতিবাচক অবদান রয়েছে। আমরা তদের নিয়ে ও দলের সিনিয়র নেতাদের নিয়ে স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠাতা ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে এসেছি।’

মির্জা ফখরুল আরো বলেন, আমরা আজকে দলের নতুন দুজন স্থায়ী কমিটির সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের মাজারে এসে আবার শপথ গ্রহণ করেছি, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে অগণতান্ত্রিক ও অন্যায়ভাবে যে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে, তার বিরুদ্ধে আমরা আন্দোলনকে আরো বেগবান করব।

এ সময় স্থায়ী কমিটির নবনির্বাচিত সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করব আমাদের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে দেশনেত্রীর মুক্তি ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য জনগণকে সঙ্গে নিয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে।’

এ সময় স্থায়ী কমিটির আরেক নতুন সদস্য সেলিনা রহমান বলেন, ‘দেশনেত্রীখালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে। আমাদের প্রধান লক্ষ্য থাকবে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা। ওনাকে মুক্ত করতে পারলেই গণতন্ত্র মুক্ত হবে।’ তিনি বলেন, আমাদের দলকে ঐক্যবদ্ধ রেখে খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনকে জোরদার করতে হবে।

Advertisement