Beta

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যাত্রীদের দুর্ভোগ, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়

১০ জুন ২০১৯, ২১:৫২

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটে বাস সংকট ও বাড়তি ভাড়ার কারণে খোলা ট্রাক, পিকআপ ভ্যান ও রিকশাভ্যানে করে ঢাকায় ফিরছে লোকজন। ছবি : এনটিভি

মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাট থেকে যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ উঠেছে বাস মালিক ও শ্রমিকদের বিরুদ্ধে।

গত কয়েকদিন ধরে উভয় ঘাটে ঈদ ফেরত যাত্রীদের ভিড় থাকায় পরিবহনের মালিক ও শ্রমিকরা স্থানীয় প্রভাবশালীদের সহযোগিতায় গাড়ির কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে যাত্রীদের জিম্মি করে তাদের কাছ থেকে অতি‌রিক্ত ভাড়া আদায় করছে বলে অভিযোগ তাদের।

এদিকে বাস সংকটের কারণে, বাসের পাশাপাশি খোলা ট্রাক, পিকআপ ভ্যান, রিকশাভ্যানে করেও যাত্রীরা অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছেন।

সোমবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত পাটুরিয়া ঘাটে অবস্থানরত সাংবা‌দিকদের কাছে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার অন্তত দুইশ নারী-পুরুষ যাত্রী অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেন।

দুপুর ২টার দিকে পাটুরিয়া লঞ্চ ঘাট সংলগ্ন এলাকায় সৌখিন পরিবহনের একটি বাসে উঠার সময় কুষ্টিয়া এলাকার তিন যাত্রী মাসুদ হোসেন, মনির হোসেন ও মাহফুজ রহমানের কাছে বাসের সহকারী পাটুরিয়া থেকে সাভার যেতে ভাড়া চান ৮০ টাকার পরিবর্তে ৫০০ টাকা করে। অতিরিক্ত ভাড়া চাওয়ায় তাঁরা প্রতিবাদও করেন। কিন্তু লাভ হয়নি। তাঁরা এক ঘণ্টা অপেক্ষার পরও কোনো গাড়িতে উঠতে পারেননি।

মাগুরা জেলা শহরের আনিসুর রহমান বলেন, রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া অংশে বাসে দ্বিগুণ ভাড়া নিচ্ছে। মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ঘাটেও একই চিত্র। ১০০ টাকার ভাড়া নিচ্ছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন, নীলাচল পরিবহনের বাসের চালক ও সহকারী যাত্রীদের কাছ থেকে পাটুরিয়া থেকে ঢাকার ভাড়া ২০০ টাকার পরিবর্তে ৩০০ টাকা নিচ্ছে।

রাজবাড়ী জেলার হাসিনা আকতার বলেন, তিনি তিনজন শিশু সন্তান নিয়ে দুই ঘণ্টা পাটুরিয়া ঘা‌টে বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন। ঈদ শেষে ঢাকায় ফিরছেন। হাতে অতিরিক্ত টাকা নেই। তিনজনের ঢাকায় যেতে তাঁর হাতে আছে ৭০০ টাকা। কিন্তু বাস ভাড়াই চাচ্ছে ৯০০ টাকা। এ কারণে তিনি কোনো গাড়িতেই উঠতে পারছেন না। বড় বিপদে আছেন বলে জানান তিনি।

এদিকে, পাটুরিয়া ঘাটে পুলিশ কন্ট্রোল রুমে দায়িত্বে থাকা পুলিশ কর্মকর্তার কাছে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করলে ট্রাফিক সার্জেন্ট আলী আকবর এবং মানিকগঞ্জ ডিবি পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ভিক্টর ব্যানার্জি তাৎক্ষণিকভাবে নীলাচল ও পলাশ পরিবহনের বাসের চালককে আটক এবং পরে তাদের অতিরিক্ত ভাড়া আদায় থেকে বিরত থাকতে সতর্ক করে দেন। একই সঙ্গে অতিরিক্ত আদায় করা ভাড়া যাত্রীদের ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করে দেন।

এ ছাড়া স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা তাদের লোকজন দিয়ে ঘাটের প্রতি গাড়ি থেকে প্রতি ট্রিপের জন্য ৩০০ টাকা চাঁদা আদায় করছে বলে অভিযোগ করছেন কয়েকটি পরিবহনের বাসের চালক ও সহকারী।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই চালক ও সহকারীরা বলেন, বাস মালিকদের সঙ্গে এলাকাবাসীর পারস্পরিক আলোচনার ভিত্তিতেই তারা এই চাঁদা উত্তোলন করছে।

এ বিষয়ে মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম বলেন, যাত্রীর তুলনায় গাড়ির সংখ্যা কম। এ কারণে বাস মালিক-শ্রমিকরা অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার চেষ্টা করছেন। সকাল থেকেই অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ আসছে। পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাটে পুলিশ মোতায়েন আছে। অতিরিক্ত ভাড়া আদায় প্রতিরোধে তারা কাজ করছেন। এ ব্যাপারে পুলিশ তৎপর আছে বলে জানান তিনি।  

মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস বলেন, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় ঠেকাতে পাটুরিয়া ঘাটে এবং মহাসড়কে দুটি মোবাইল কোর্ট বসানো হয়েছে। এর আগে, শনিবার পাটুরিয়া ও আরিচা ঘাটে মোবাইল কোর্ট বসিয়ে কয়েকটি পরিবহনকে জরিমানা করা হয়েছে এবং তাদেরকে ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করে দেওয়া হযেছে বলেও জানান তিনি।

তবে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে পর্যাপ্ত ফেরি ও লঞ্চ থাকায় যাত্রী ও যানবাহন পারাপার করতে তেমন কোনো সমস্যা হচ্ছে না বলে জানান বিআইডব্লিউটিসির সহকারী মহাব্যবস্থাপক জিল্লুর রহমান।

Advertisement