Beta

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ২ ‘ডাকাতকে’ পিটিয়ে মারল জনতা

৩০ মে ২০১৯, ০৯:০২ | আপডেট: ৩০ মে ২০১৯, ০৯:৩১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলায় গণপিটুনিতে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। পুলিশের দাবি, তাঁরা ডাকাতদলের সদস্য। ছবি : এনটিভি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ উপজেলায় কথিত গণপিটুনিতে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে পুলিশ। পুলিশের দাবি, তাঁরা ডাকাতদলের সদস্য। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরো তিনজন।

গতকাল বুধবার মাঝরাতের দিকে উপজেলার দুর্গাপুর এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

নিহতদের নাম প্রাথমিকভাবে জামাল ও শহীদ বলে জানা গেছে।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ দাবি করেছে, গতকাল গভীর রাতে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে বারো থেকে পনেরো জনের একদল ডাকাত দুর্গাপুর এলাকার বাসিন্দা প্রবাসী হাবিবুর রহমানের বাড়িতে প্রবেশ করে এবং অস্ত্রের মুখে বাড়ির লোকজনকে জিম্মি করে মালামাল লুটের চেষ্টা করে।

সে সময় বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে ডাকাতরা বাড়ির লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এতে বাড়ির লোকজন সাহায্যের জন্য চিৎকার করতে শুরু করলে গ্রামবাসী টের পেয়ে এগিয়ে আসে। ডাকাতদলের অন্য সদস্যরা পালিয়ে গেলেও দুজনকে ধরে পিটুনি দেয় জনতা।

খবর পেয়ে পুলিশ গুরুতর আহত অবস্থায় ওই দুই ডাকাতকে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁদের মৃত্যু হয়।

এদিকে ডাকাতরা বাড়ির গৃহকর্তা হাবিবুর রহমানের ছেলে ছানাউল্লাহ মিয়া (৪০), নাতি রাহুল মিয়া (২৫) ও আরেক প্রবাসী ছেলে কাউছার মিয়ার স্ত্রী প্রীতি আক্তারকে (২৫) অস্ত্র দিয়ে কোপালে তাঁরা গুরুতর আহত হন। আহতদের মধ্যে ছানাউল্লাহ ও রাহুলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রীতি আক্তার স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইল সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মকবুল হোসেন বলেন, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। গ্রামবাসী দুই ডাকাতকে গণপিটুনি দিলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁরা মারা যান। তাঁদের লাশ জেলা সদর হাসপাতালে মর্গে রাখা আছে।’

Advertisement