Beta

নুসরাত হত্যা : ১৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল

২৯ মে ২০১৯, ১৬:৫৫

ইউএনবি
নুসরাত হত্যার অভিযুক্ত আসামিরা। ছবি : ইউএনবি

নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় মাদ্রাসা অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ উদ দৌলা ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিনসহ ১৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। আজ বুধবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে ফেনীর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শাহ আলম ফেনীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম জাকির হোসেনের আদালতে এই অভিযোগপত্র জমা দেন। তিনি জানান, অভিযোগপত্রে অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি চাওয়া হয়েছে।

অভিযুক্ত অপর ১৪ আসামি হলেন নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম (২০), কাউন্সিলর মাকসুদ আলম ওরফে মোকসুদ আলম (৫০), সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের (২১), জাবেদ হোসেন ওরফে সাখাওয়াত হোসেন জাবেদ (১৯), হাফেজ আবদুল কাদের (২৫), আবছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মনি (১৯), উম্মে  সুলতানা ওরফে পপি ওরফে তুহিন ওরফে শম্পা ওরফে চম্পা (১৯), আবদুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন ওরফে মামুন (২২), মোহাম্মদ শামীম (২০) ও মহিউদ্দিন শাকিল।

ঘটনার এক মাস ২১ দিনের মাথায় মামলাটির অভিযোগপত্র দেওয়া হলো। অভিযোগপত্রে মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলাকে হত্যার হুকুমদাতা হিসেবে আসামি করা হয়েছে। নুসরাত হত্যাকাণ্ডে ১৬ জনকে দায়ী করে ৭২২ পৃষ্ঠার অভিযোগপত্র চূড়ান্ত করা হয়েছে। সরাসরি হত্যাকাণ্ডে অংশ না নিলেও হত্যার মূল দায় অধ্যক্ষ সিরাজের।

মঙ্গলবার রাজধানী ধানমণ্ডিতে পিবিআইর সদর দপ্তরে উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) বনজ কুমার মজুমদার এক সংবাদ সম্মেলনে আজ (বুধবার) ১৬ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করার কথা জানান। এ সময় পিবিআইর তদন্তে নুসরাত হত্যার পুরো বিবরণও তুলে ধরা হয়।

পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার বলেন, নুসরাত হত্যাকাণ্ডে ১৬ জন জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছেন তাঁরা। এদের মধ্যে ১২ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ শাস্তির আবেদন জানানো হবে।

ডিআইজি আরো বলেন, এ মামলায় ৯২ জনকে সাক্ষী করা হয়েছে, যাদের মধ্যে সাতজন এরই মধ্যে আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন।

সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলার বিরুদ্ধে মেয়েকে যৌন হয়রানি করার অভিযোগ আনেন নুসরাতের মা শিরিন আক্তার।

মামলাটি তুলে না নেওয়ায় গত ৬ এপ্রিল পরীক্ষার হল থেকে কৌশলে ডেকে পাশের ভবনের তিনতলার ছাদে নিয়ে সিরাজ উদ দৌলার সহযোগীরা নুসরাতের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়।

পাঁচ দিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে গত ১০ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মৃত্যুবরণ করে নুসরাত।

Advertisement