Beta

‘চীন ও ভারতের আঞ্চলিক সহযোগিতার প্রতিটি উদ্যোগে থাকতে চায় বাংলাদেশ’

১৮ মে ২০১৯, ২২:৫৪

নিজস্ব প্রতিবেদক
শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ-চীন সিল্ক রোড ফোরামের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী। ছবি : এনটিভি

চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড অথবা ভারতের ইন্দো প্যাসিফিস স্ট্র্যাটেজিসহ অন্যান্য আঞ্চলিক সহযোগিতার উদ্যোগের সঙ্গে থাকবে বাংলাদেশ। এমন অভিমত প্রধানমন্ত্রীর আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভীর।

তাঁর মতে, চীন ও ভারতের বাণিজ্যিক সম্পর্ক যেখানে ভালো সেখানে তাদের নেওয়া পৃথক আঞ্চলিক সহযোগিতার উদ্যোগগুলোর প্রতিটির সঙ্গেই থাকতে চায় বাংলাদেশ।

আজ শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ-চীন সিল্ক রোড ফোরামের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে গওহর রিজভী এসব কথা বলেন।

আলোচনায় অন্যদের মধ্যে অংশ নেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান, জাসদের সভাপতি ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি, বিশিষ্ট লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদ, দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেসের নির্বাহী সম্পাদক শহিদুজ্জামান খান, বাংলাদেশ জাসদের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুল্লাহ কাফী রতন, বিশিষ্ট শ্রমিক নেতা ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান, প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান, সাম্যবাদী দলের পলিটব্যুরো সদস্য কমরেড সাইফুল ইসলাম মাস্টার, ন্যাপের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য কমরেড আলী আহমদ এনামুল হক, বাংলাদেশ সরকারের প্রাক্তন অতিরিক্ত সচিব এবিএম খোরশেদ আলম প্রমুখ।

সাম্যবাদী দলের সভাপতি দিলীপ বড়ুয়াকে চেয়ারম্যান করে সিল্ক রোড ফোরাম আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হয়। এতে ভাইস চেয়ারম্যান করা হয় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনুকে। অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত ঝ্যাং ঝু।

সংগঠনের অপর ভাইস চেয়ারম্যানরা হলেন মোজাফফর হোসেন পল্টু, শরিফ নুরুল আম্বিয়া, রিয়াজ উদ্দীন আহমদ, ব্যারিস্টার আরশ আলী, সৈয়দ আবুল মকসুদ। মহাসচিব হয়েছেন শহিদুজ্জামান খান, যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস ও আব্দুল্লাহিল কাইয়ুম, কোষাধ্যক্ষ কামাল উদ্দীন, প্রচার সম্পাদক জনাব মোশাহিদ আহমেদ, দপ্তর সম্পাদক আবু সাঈদ। এছাড়াও ফোরামের সদস্য হিসেবে রয়েছেন ডা. ওয়াজেদুল ইসলাম খান,  বিমল বিশ্বাস, মঞ্জুরুল হাসান বুলবুল, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন, ডা. মোশতাক হোসেন, মিজানুর রহমান খান, প্রকৌশলী আবুল কাশেম, সাদেক সিদ্দিকী, এবিএম খোরশেদ আলম, নাসিম মাহমুদ, ইসমাইল হোসেন, অধ্যাপক ডা. সিরাজুল হক, দীপা দত্ত, অধ্যাপক ডা. অসীম রঞ্জন বড়ুয়া, আসাদুজ্জামান খান, অধ্যক্ষ জোহরা আনিস, রোকনুজ্জামান রোকন, মির্জা আনোয়ারুল হক, জহিরুল হক, জায়েদুল কবির।

Advertisement