Beta

নার্সকে গণধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদে মুখর কিশোরগঞ্জ

০৯ মে ২০১৯, ১৬:২৮

কিশোরগঞ্জে চলন্ত বাসে নার্স শাহীনূর আক্তার তানিয়াকে গণধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় প্রতিবাদে মুখর হয়ে উঠেছে জেলার লোকজন। নৃশংস এ ঘটনার প্রতিবাদে দুদিন ধরে কিশোরগঞ্জে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করছে বিভিন্ন সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠন।

এরই অংশ হিসেবে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেলা হাসপাতালের সামনে বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ) কিশোরগঞ্জ জেলা শাখার উদ্যোগে মানববন্ধন শুরু হয়। মানববন্ধন চলাকালে একাত্মতা ঘোষণা করে বক্তব্য দেন কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহমুদ পারভেজ, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মজিবুর রহমান, বি এম এ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. আব্দুল ওয়াহাব বাদল, নার্সেস অ্যাসোসিয়েশনের জেলা সভাপতি আব্দুস সালাম ভূঁইয়া ও সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক।

অপরদিকে শহরের কালীবাড়ি মোড়ে জেলা মহিলা পরিষদের উদ্যোগে আরেকটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দেন কিশোরগঞ্জ মহিলা পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট মায়া ভৌমিক, নারীনেত্রী সুলতানা রাজিয়া, বিলকিস বেগম প্রমুখ। এ ছাড়া একই সময়ে কালীবাড়ি মোড়ে সমকাল সুহৃদ সমাবেশ ও আখড়া বাজার ব্রিজ এলাকায় কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

একই দাবিতে দুপুর ১২টার দিকে জেলা শহরের গৌরাঙ্গ বাজার এলাকায় মানববন্ধন করে বাম গণতান্ত্রিক জোট। এতে বক্তব্য দেন বাসদের জেলা সমন্বয়ক শফিকুল ইসলাম, সিপিবির সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক, তেল-গ্যাস-বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির জেলা সদস্য সচিব আবুল হাশেম, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান রুমী, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির জেলা সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম শাহজাহান এবং সিপিবি শহর শাখার সভাপতি হাসান ইমাম রঞ্জু।

প্রতিটি কর্মসূচিতে বক্তারা দ্রুত বিচার সম্পন্নের মাধ্যমে আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান।

এর আগে গতকাল বুধবার পাকুন্দিয়া সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রলীগের উদ্যোগে মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচি চলাকালে পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদের ফটকের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ শেষে নেতাকর্মীরা কিশোরগঞ্জ-ঢাকা সড়ক অবরোধ করে। এ ছাড়া গতকাল বিকেলে কিশোরগঞ্জ শহরের পুরানথানা এলাকায় ইসলামিয়া সুপার মার্কেটের সামনে প্রথম আলো কিশোরগঞ্জ বন্ধুসভার আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

রাজধানীর ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কর্মরত নার্স তানিয়া গত সোমবার বিকেলে নিজ বাড়িতে আসার জন্য ঢাকার মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে স্বর্ণলতা পরিবহনের একটি বাসে করে রওনা হন। বাসটি কিশোরগঞ্জ-ভৈরব সড়কের বাজিতপুর উপজেলার পিরিজপুর ইউনিয়নের বিলপাড় গজারিয়া জামতলী নামক স্থানে পৌঁছার পর বাসের চালক ও সহকারীসহ অন্যরা শাহীনূরকে ধর্ষণ করে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেন। ভৈরব-কিশোরগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের ওই এলাকা থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধারের পর রাত পৌনে ১১টার দিকে তানিয়াকে কটিয়াদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন।

এ দিকে মঙ্গলবার বিকেলে কিশোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে নার্স শাহীনূর আক্তার তানিয়ার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়। ময়নাতদন্ত শেষে জেলার সিভিল সার্জন ডা. হাবীবুর রহমান জানান, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে, ধস্তাধস্তির কারণেই এই জখম হয়েছে। তা ছাড়া নিহতের যৌনাঙ্গ থেকে রক্তক্ষরণের আলামত ও আঠাল পদার্থের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। সব মিলিয়ে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যায়, ভিকটিমকে হত্যার আগে ধর্ষণ করা হয়েছে।

ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে তানিয়ার বাবা গিয়াস উদ্দিন বাদী হয়ে পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে বাজিতপুর থানায় একটি মামলা করেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বাজিতপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সারোয়ার জাহান বুধবার দুপুরে পাঁচ আসামিকে আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০দিন করে রিমান্ডের আবেদন করেন। আসামিরা হচ্ছেন বাসচালক নূরুজ্জামান, চালকের সহকারী লালন মিয়া, রফিকুল ইসলাম রফিক, খোকন মিয়া ও বকুল মিয়া। শুনানি শেষে অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক আল মামুন আটদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Advertisement