Beta

কুয়াকাটায় ঝড়ো হাওয়া, পটুয়াখালীর চার গ্রাম প্লাবিত

০৩ মে ২০১৯, ১৮:০০ | আপডেট: ০৩ মে ২০১৯, ১৮:২৫

কাজল বরণ দাস, পটুয়াখালী

ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’র প্রভাবে কুয়াকাটাসহ পটুয়াখালীর বিভিন্ন উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বইছে। কুয়াকাটায় সাগর উত্তাল আছে। বাঁধ ভেঙে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে জেলার ১০ হাজার মানুষ।

আজ শুক্রবার সকাল থেকেই পটুয়াখালীতে এমন চিত্র দেখা যায়। উপকূলীয় উপজেলা গলাচিপা, কলাপাড়া, রাঙাবালির বেড়িবাঁধবিহীন নিম্নাঞ্চলগুলো এক থেকে দেড়ফুট পানিতে তলিয়ে গেছে।

জানা যায়, মির্জাগঞ্জ উপজেলার মোহন্দিয়া বাঁধসহ চারটি গ্রাম পায়রা নদীর পানিতে বাঁধ ভেঙে তলিয়ে গেছে। গলাচিপার চালিতা বুনিয়া, চর কাশেম, রাঙাবালীর চরান্দা বেড়িবাঁধ ভেঙে ১০ হাজার মানুষ পানিবন্দি অবস্থায় আছে। আশ্রয়কেন্দ্রগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে চরের মানুষ।

রাঙাবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলী আহমেদ এবং চরমন্তাজ পুলিশ ফাঁড়ির সুদেব এসব তথ্য জানান।

জানা যায়, কুয়াকাটা সৈকত সংলগ্ন এলাকায় বেড়িবাঁধের ভাঙন রোধে বালুর বস্তা ফেলা হয়েছে। ফণীর প্রভাবে প্রবল জোয়ারে নিম্নাঞ্চল আরো প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

পটুয়াখালীর জেলাপ্রশাসক মতিউল ইসলাম চৌধুরী জানিয়েছেন, ৩৯১টি আশ্রয়কেন্দ্র, চাল, শুকনো খাবার ও ৬ শতাধিক স্কুলে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা করে প্রস্তুতি নেওয়া আছে।

Advertisement