Beta

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে ঢাকা মেডিকেলে নানা কর্মসূচি

১৭ মার্চ ২০১৯, ১৩:২৯ | আপডেট: ১৭ মার্চ ২০১৯, ১৪:৫৩

নিজস্ব সংবাদদাতা
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন আজ রোববার শিশুদের নিয়ে কেক কাটেন। ছবি : এনটিভি

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চলছে অনেক আয়োজন। কেক কাটা থেকে শুরু করে রোগীদের উন্নত খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

আজ রোববার সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ৮টা পর্যন্ত হাসপাতালের সভাকক্ষে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সমন্বয়ে আলোচনা সভা করা হয়। সকাল থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত বহির্বিভাগ খোলা রেখে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হয়। দিনটি জাতীয় শিশু দিবস হওয়ায় শিশু ওয়ার্ডগুলো সুসজ্জিত করা হয়। এর সঙ্গে সঙ্গে স্লোগান দেয় ‘খুশির দিন, সুখের দিন, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন’।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম নাসির উদ্দিন, ঢাকা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. খান আবুল কালাম আজাদ, উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. শফিকুল ইসলাম, হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ।

পরিচালক বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ছিলেন আমাদের আদর্শের প্রতীক। তাঁর আদর্শ আমাদের মেনে চলা উচিত। তাঁর জন্মদিন উপলক্ষে হাসপাতালের বহির্বিভাগ খোলা রাখা হয়েছে। দুপুর ১২টা পর্যন্ত ফ্রি টিকেটের ব্যবস্থা করা হয়েছে। হাসপাতালের রোগীদের জন্য উন্নত খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।’

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন আজ রোববার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাদের কার্যালয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ছবি : এনটিভি

দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ) ঢাকা মেডিকেলে তাদের কার্যালয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। কার্যালয়টি সুসজ্জিত করা হয়। কেক কেটে জন্মদিনের শুরু করেন নেতারা। এবং শেষে পথশিশুদের মধ্যে খাবার বিতরণ করেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. বিদ্যুৎ কান্তি পাল, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আবুল খায়ের, সাধারণ সম্পাদক দীপু সারোয়ার, বিএনএর সভাপতি মো. কামাল হোসেন পাটোয়ারী, সাধারণ সম্পাদক মো. আসাদুজ্জামান জুয়েলসহ আরো অনেকে।

এ সময় বক্তারা বলেন, ‘আজ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস। এই দিনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বঙ্গবন্ধু নার্সদের অত্যন্ত স্নেহ করতেন। আজ  নার্সদের জন্য বঙ্গবন্ধুর গুরুত্ব অপরিসীম।’

Advertisement