Beta

প্রধানমন্ত্রীর পা ছুঁয়ে ভিপি নুরের সালাম

১৬ মার্চ ২০১৯, ১৯:০৩ | আপডেট: ১৬ মার্চ ২০১৯, ২২:৪২

নিজস্ব প্রতিবেদক
আজ শনিবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পা ছুঁয়ে সালাম করেন ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। ছবি : সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পা ছুঁয়ে সালাম করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) নবনির্বাচিত সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর। প্রধানমন্ত্রী পরম মমতায় তাঁর মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করে দেন। এ সময় নুরও পরম শ্রদ্ধায় সেই হাত বুকের কাছে টেনে নেন এবং তাঁর জন্য দোয়া করতে বলেন।

সরকারপ্রধান ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার দোয়া পেয়ে বেশ হাস্যোজ্জ্বল ছিলেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের সংগঠন বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ভিপি নুরুল হক নুর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও খুশি ছিলেন। পাশে দাঁড়িয়ে সেই দৃশ্য উপভোগ করেন ডাকসুর নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক (জিএস) ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে আজ শনিবার বিকেল সোয়া ৩টার দিকে গণভবনে প্রবেশ করেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) গোলাম রাব্বানী। এরপর ডাকসু ও হল সংসদের অন্য নেতারা গণভবনে প্রবেশ করেন।
আজ শনিবার গণভবনে ডাকসুর নবনির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুরের মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি : বাসস

এর আগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে জড়ো হন ডাকসু ও হল সংসদের নবনির্বাচিত প্রতিনিধিরা। ছাত্রলীগের নেতারা ফটো সেশন করেন এবং আনন্দ-উল্লাস করেন। তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে ওঠেন। এর মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসারদের জন্য বরাদ্দ করা বাসে ওঠেন ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রলীগের বিজয়ীরা। নেতৃত্বে ছিলেন ডাকসুর জিএস ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। তাঁর পাশে বসেছিলেন ডাকসুর পরাজিত ভিপিপ্রার্থী ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।

অন্যদিকে উবারের ভাড়া প্রাইভেটকারে করে গণভবনে যান নুরুল হক নুর ও তাঁর প্যানেল থেকে নির্বাচিত ডাকসুর সমাজসেবা সম্পাদক আকতার হোসেন।

বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন জানান, নুর ও আখতার উবারের ভাড়া গাড়িতে করে গণভবনে গেছেন।

গত ১১ মার্চ অনুষ্ঠিত ডাকসু নির্বাচনে ভিপি ও সমাজসেবা সম্পাদক ছাড়া বাকি ২৩টি পদে জয়ী হয়েছে ছাত্রলীগ। ২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত এই নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুলে তা বর্জন করেছে ছাত্রলীগ ছাড়া পাঁচটি প্যানেল। তারা পুনরায় নির্বাচন দাবি করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আলটিমেটাম দিয়েছে।

Advertisement