Beta

ভৈরবে গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ২২:২৭

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গণিত উৎসবে অতিথিদের সঙ্গে পুরস্কার জয়ী শিক্ষার্থীরা। ছবি : এনটিভি

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বুধবার উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের বাঁশগাড়ি জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের উদ্যোগে ওই গণিত উৎসব অনুষ্ঠিত হয়।

সকাল ১০টার দিকে বুয়েটের শিক্ষক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ কায়কোবাদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ওই উৎসবের উদ্বোধন করেন।

জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ওই উৎসবে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রয়েল ইউনিভার্সিটির উপাচার্য ড. প্রফুল্ল চন্দ্র সরকার ও জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের উপদেষ্টা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) গোলাম হোসেন সরকার।

উপজেলার নিম্ন মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের নয়টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তিন শাখায় বিভক্ত হয়ে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়। মোট ৩১২ জন শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ী প্রতি বিভাগে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অর্জনকারীদের হাতে পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট এবং অংশগ্রহণকারী প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে বিশেষ পুরস্কার হিসেবে কম্বল উপহার দেওয়া হয়।

প্রতিযোগিতায় (ষষ্ঠ-অষ্টম শ্রেণি) জুনিয়র শাখায় প্রথম স্থান অর্জন করে জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সাইফ মিয়া, দ্বিতীয় হয় একই প্রতিষ্ঠানের ইসরাত জাহান ও তৃতীয় হয় চরেরকান্দা নয়াহাটি জুনিয়র হাইস্কুলের শিহাব উদ্দিন।

মাধ্যমিক (নবম-দশম) শাখায় প্রথম হয় জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের রাইহান হাসান, দ্বিতীয় হয় একই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের আবির আহমেদ ও তৃতীয় হয় কালিকাপ্রসাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের মো. শফিকুল ইসলাম।

উচ্চ মাধ্যমিক (একাদশ-দ্বাদশ) শাখায় প্রথম হয় জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের সুয়েব কামাল, দ্বিতীয় হয় একই প্রতিষ্ঠানের অংকিতা মজুমদার এবং তৃতীয় হয় শিমূলকান্দি কলেজের কৌশিক বিশ্বাস।

প্রতিযোগিতা শেষে জেড. রহমান প্রিমিয়ার ব্যাংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ শাহ আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক মোহাম্মদ কায়কোবাদ বলেন, গণিত হলো সব বিজ্ঞানের প্রাণ। তাই বিজ্ঞানের জ্ঞান অর্জন করতে হলে গণিত বিষয়ে পান্ডিত্য অর্জন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে এই রকম গণিত উৎসব অত্যন্ত ফলদায়ক কাজ।

ড. কায়কোবাদ উৎসবে অংশগ্রহণকারীদের উৎসাহ, গণিত বিষয়ে চমৎকার ধারণা দেখে অভিভূত হয়েছেন উল্লেখ করে বলেন, তোমাদের এই চর্চা অব্যাহত থাকলে তোমরা জাতীয় গণিত উৎসবে অংশ নিয়ে নিজেদের প্রতিভার স্বাক্ষর রাখতে পারবে। ভূমিকা রাখতে পারবে দেশের বিজ্ঞান চর্চায়।

এ সময় অতিথিবৃন্দ ছাড়াও বক্তব্য দেন কলেজ শাখার উপাধ্যক্ষ জর্জ ফ্রান্সিস সরকার, স্কুল শাখার উপাধ্যক্ষ মো. ফরিদুল হাসান টুটুল প্রমুখ।

Advertisement