Beta

ফুলের রাজ্যে রবার্ট মিলার, বললেন সম্ভাবনার কথা

১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৮

ফুলের রাজধানীখ্যাত যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলায় নারী চাষিদের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার ও তাঁর স্ত্রী মিশেল। ছবি : এনটিভি

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের নতুন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার বলেছেন, আগামীতে বাংলাদেশের বিপুল সম্ভাবনাময় একটি অর্থনৈতিক খাত হলো এর ক্রমবর্ধমান ফুলের বাজার।

আজ সোমবার বেলা ১১টার দিকে ফুলের রাজধানীখ্যাত যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালী ও পানিসারা এলাকায় ফুলের খামার পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন রবার্ট মিলার।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘নতুন রাষ্ট্রদূত হিসেবে খুলনা ও যশোরে এটাই আমার প্রথম সফর। সুন্দর এ দেশটা ঘুরে দেখার জন্য এটা একটা দারুণ সুযোগ। আমি মূলত এসেছি এই ফুলের খামার পরিদর্শন ও বাংলাদেশে বর্ধনশীল ফুলের বাজার সম্পর্কে ধারণা নিতে। এটা দারুণ সম্ভাবনাময় একটা খাত।’

ফুলের রাজধানীখ্যাত যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলায় আজ সোমবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার। ছবি : এনটিভি

‘বাংলাদেশে বর্তমানে বছরে দেড়শ মিলিয়ন ডলারের (প্রায় ১ হাজার ২৬০ কোটি টাকা) ফুলের বাজার রয়েছে। এটা আরো বাড়ছে। সেই সঙ্গে রপ্তানির সম্ভাবনাও তৈরি হচ্ছে’, বলেন মার্কিন রাষ্ট্রদুত।

রবার্ট মিলার বলেন, ‘এ পেশায় নারীদের সংশ্লিষ্টতা দেখে আমার খুবই ভালো লেগেছে। সতেজ ফুল বাজারে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে বিপণন ব্যবস্থার কিছু চ্যালেঞ্জ থাকলেও বাংলাদেশে ফুলের বাজার ব্যাপক সম্ভাবনাময়। এর সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। গত বেশ কিছু বছর ধরে ইউএসএআইডি (যুক্তরাষ্ট্র সরকারের উন্নয়নমূলক সংস্থা) এ জায়গাটায় সহযোগিতা করছে।’

বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে অর্থনৈতিক-বাণিজ্যিক সম্পর্কের পাশাপাশি মার্কিন সরকার আগামীতে কৃষিক্ষেত্রে আরো বেশি গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে চায় বলেও জানান রাষ্ট্রদূত।

ফুল চাষের সার্বিক পরিস্থিতি প্রসঙ্গে ফুলের খামারে সংশ্লিষ্ট ইউএসএআইডির প্রাইভেট সেক্টর বিভাগের উপদেষ্টা অনুরুদ্ধ রায় বলেন, চাষিরা যাতে উন্নত পদ্ধতিতে মানসম্মত ফুল উৎপাদন করতে পারে সে বিষয়ে কাজ করছে সংস্থাটি। এতে এরই মাঝে উৎপাদনশীলতা আগের চেয়ে দেড়শ ভাগ পর্যন্ত বেড়েছে।’ পানিসারায় দেশের প্রথম ফ্লাওয়ার স্টোর নির্মাণ করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। এ ছাড়া আগামীতে ফুলের প্যাকেজিং, গ্রেডিং ও রপ্তানি সম্ভাবনা নিয়েও ইউএসএআইডি কাজ করবে বলে জানান অনুরুদ্ধ।

ফুলের খামার পরিদর্শনকালে রবার্ট মিলারের সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী মিশেলসহ ২০ সদস্যের প্রতিনিধি দল। ফুলচাষিরা ফুলের মুকুট পরিয়ে রাষ্ট্রদূত ও তাঁর স্ত্রীকে বরণ করে নেন।

Advertisement