Beta

আগ্নেয়াস্ত্র ও পেট্রলবোমা রেখে নিজেই ফাঁসলেন

২২ জানুয়ারি ২০১৯, ১৬:১৯

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে বিদেশি পিস্তল, গুলি, ককটেল, পেট্রলবোমা ও তৈরির সরঞ্জাম রেখে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে গ্রেপ্তার তমিজ উদ্দিন (মধ্যে)। ছবি : এনটিভি

বিদেশি পিস্তল, গুলি, ককটেল, পেট্রলবোমা ও তৈরির সরঞ্জাম রেখে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গিয়ে ফেঁসে গেছেন তমিজ উদ্দিন (৫০) নামের এক পল্লি চিকিৎসক। র‍্যাব ৪-এর জিজ্ঞাসাবাদে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ভাকুম গ্রামে বাছের ফকিরের বাড়ির পাশে এসব রাখার কথা স্বীকার করেন তিনি।

এর আগে মঙ্গলবার ভোরে র‍্যাব ৪-এর একটি দল সেখান থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি গুলি, ১০টি ককটেল, চারটি পেট্রলবোমা ও তৈরির সরঞ্জাম জব্দ করে।

র‍্যাব ৪-এর মেজর আজিজুল হাকিম সাংবাদিকদের জানান, পরিচয় গোপন করে মোবাইল ফোনে একজন এসব অস্ত্র ও পেট্রলবোমা বাছের ফকিরের বাড়ির পাশে রয়েছে বলে র‍্যাব ৪-এ তথ্য দেয়। তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালান র‍্যাব-৪ সদস্যরা। সেখান থেকে এসব অস্ত্র ও পেট্রলবোমা জব্দ করে বাছের ফকিরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

বাছের ফকির র‍্যাব-৪ কর্মকর্তাকে বলেন, তাঁর ছেলে রাসেল (১৯) হত্যা মামলার প্রধান আসামি তমিজ উদ্দিনের ছেলে রাকিব হোসেন। কিছু দিন ধরে জামিনে এসে মামলা তুলে নিতে হুমকি দিচ্ছিল। তারাই ফাঁসাতে এ ঘটনা ঘটাতে পারেন।

র‍্যাব-৪ সদস্যরা বিষয়টি আমলে নিয়ে ওই মোবাইল ফোন নম্বর ট্র্যাকিং করে ব্যবহারকারী তমিজ উদ্দিনকে আটক করেন। তমিজ উদ্দিন জিজ্ঞাসাবাদে প্রতিপক্ষ বাছের ফকিরকে ফাঁসাতে এসব অস্ত্র ও পেট্রলবোমা রেখে র‍্যাব ৪-এ তথ্য দেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন।

এ ঘটনায় তমিজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে সিংগাইর থানায় অস্ত্র আইনসহ পৃথক মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলেও জানান মেজর আজিজুল হাকিম।

Advertisement