Beta

শরিকদের যেসব আসন দিল বিএনপি

০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ২০:৪৫ | আপডেট: ০৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:২৭

নিজস্ব সংবাদদাতা

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের শরিকদের জন্য এ পর্যন্ত ৩০টি আসন ছেড়েছে বিএনপি। এর মধ্যে গণফোরামকে ছয়টি, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টিকে (এলডিপি) পাঁচটি, জেএসডিকে পাঁচটি, নাগরিক ঐক্যকে পাঁচটি, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামকে তিনটি জাতীয় পার্টিকে (কাজী জাফর) দুটি, খেলাফত মজলিসকে দুটি, এনপিপিকে একটি ও বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির জন্য একটি আসন দিয়েছে তারা। তারা বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবে।

গণফোরাম পেয়েছে ছয়টি

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল গণফোরামকে ছয়টি আসন দিয়েছে বিএনপি। দলটির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফা মোহসীন মন্টুর জন্য ঢাকা-৭ আসন ছেড়ে দিয়েছে তারা। ময়মনসিংহ-৮ আসনে এএইচ এম খালেকুজ্জামান, হবিগঞ্জ-১ আসনে ড. রেজা কিবরিয়া, আওয়ামী লীগ থেকে গণফোরামে যোগ দেওয়া অধ্যাপক আবু সাইয়িদকে পাবনা-১ ও আমসা-আ আমিনকে কুড়িগ্রাম-২ আসন দিয়েছে বিএনপি। এছাড়া গণফোরামের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যপ্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত সাবেক আওয়ামী লীগ নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের জন্য মৌলভীবাজার-২ আসন ছেড়ে দিয়েছে বিএনপি।

এদিকে ঢাকা-৬ আসনের জন্য বিএনপির সঙ্গে এখনো দেন-দরবার করছেন গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী। ওই আসনে বিএনপির প্রার্থী হলেন দলটির সাবেক নেতা সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক হোসেন।

এলডিপির জন্য পাঁচটি

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক এলডিপিকে পাঁচটি আসন দিয়েছে দলটি। আজ শনিবার সন্ধ্যার পর রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ের মাইকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

আসনগুলো হলো- চট্টগ্রাম-১৪ আসনে এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ, কুমিল্লা-৭ আসনে দলটির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদ, লক্ষ্মীপুর-১ আসনে শাহাদত হোসেন সেলিম, চট্টগ্রাম-৭ আসনে নুরুল আলম ও ময়মনসিংহ-১০ আসনে সৈয়দ মাহবুব মোর্শেদ।

এলডিপির নেতা শাহাদত হোসেন সেলিম বলেন, ‘বিএনপি পাঁচটি আসন দিলেও আমরা আরো দুটি আসনের জন্য দেন-দরবার করছি।’

জেএসডি পেয়েছে পাঁচটি

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক জেএসডিকে পাঁচটি আসন দিয়েছে বিএনপি। দলটির সভাপতি আ স ম আবদুর রবকে লক্ষ্মীপুর-৪, সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতনকে কুমিল্লা-৪, শহীদউদ্দিন মাহমুদ স্বপনকে ঢাকা-১৮, সাইফুল ইসলামকে কিশোরগঞ্জ-৩ ও নুরুল ইসলামকে শরীয়তপুর-১ আসন দেওয়া হয়েছে।

শনিবার সন্ধ্যায় এই মনোনয়ন দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন জেএসডির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন। তিনি বলেন, আমাদের আরো প্রার্থী আছেন। বাকি কারা পেলেন, রোববার সকালে বলা সম্ভব হবে।

নাগরিক ঐক্যকে পাঁচটি

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল নাগরিক ঐক্যকে পাঁচটি আসন দেওয়া হয়েছে। নাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় নেতা শহিদুল্লাহ কায়সার এ তথ্য জানিয়ে বলেন, শনিবার নাগরিক ঐক্যের প্রার্থীদের ধানের শীষ প্রতীকের চিঠি দেওয়া হয়েছে।

এর মধ্যে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বগুড়া-২, এস এম আকরাম নারায়ণগঞ্জ-৫, মোফাক্কারুল ইসলাম রংপুর-৫, শাহ রহমত উল্লাহ রংপুর-১ ও নুরুর রহমান জাহাঙ্গীর বরিশাল-৪ আসনে নির্বাচনে অংশ নেবেন।

জমিয়তে উলামায়ে ইসলামকে তিনটি

২০ দলীয় জোটের শরিক দল জমিয়তে উলামায়ে ইসলামকে তিনটি আসন দিয়েছে বিএনপি। দলটির শাহীনূর পাশাকে সুনামগঞ্জ-৩, আবদুল বাসিদ আজাদকে হবিগঞ্জ-২ ও মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাসকে যশোর-৫ আসনে ধানের শীষ প্রতীক দিয়েছে তারা।

খেলাফত মজলিস পেয়েছে দুটি

খেলাফত মজলিসকে দুটি আসন দিয়েছে বিএনপি। দলটির আহমেদ আবদুল কাদেরকে হবিগঞ্জ-৪ ও মুফতি মুনির হোসেনকে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসন দিয়েছে তারা।

জাপা-জাফর পেয়েছে দুটি

জাতীয় পার্টিকে (কাজী জাফর) দুটি আসন দিয়েছে বিএনপি। এর মধ্যে দলটির টিআইএম ফজলে রাব্বি গাইবান্ধা-৩ ও আহসান হাবিব লিংকন কুষ্টিয়া-২ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।

এনপিপির ফরহাদ লড়বেন মাশরাফির বিরুদ্ধে

২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক ন্যাশনাল পিপলস পার্টিকে (এনপিপি) একটি আসন দিয়েছে বিএনপি। দলটির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করবেন। ওই আসনে তাঁর প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বাংলাদেশ ওয়ানডে ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

ধানের শীষ পেয়েছেন ইবরাহীম

বিএনপি নেতৃতৃধীন ২০ দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম চট্টগ্রাম-৫ আসনে ধানের শীষের চিঠি পেয়েছেন। শনিবার সন্ধ্যায় বিএনপির চেয়ারপারসন গুলশান কার্যালয় থেকে তিনি চিঠি নিয়ে আসেন।

বিষয়টি এনটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন কল্যাণ পার্টির মহাসচিব আমিনুর রহমান।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement