Beta

খুঁটিনাটি যাচাই করে তফসিল ঘোষণা করবে ইসি

০৮ অক্টোবর ২০১৮, ২২:২০

মাসুদ রায়হান পলাশ

আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল কবে ঘোষণা করা হবে- এ নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেনি নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে ডিসেম্বর মাসে জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন করা ইসির পক্ষে কঠিন হয়ে উঠবে বলে জানা গেছে।

কমিশন বলছে, আগামী ১৫ অক্টোবর প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে ৩৬তম সভায় বসবে কমিশন। সেখানে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব কাজের টুকিটাকি হিসাব থেকে শুরু করে যাবতীয় প্রস্তুতির অগ্রগতি সম্পর্কে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের কাছে জানতে চাইবেন কমিশনাররা। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে তফসিলসহ অন্য বিষয়গুলো নিয়ে ভাববে ইসি।

নির্বাচন কমিশনের দুজন কমিশনার এবং ইসি সচিবলায়ের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বললে তাঁরা এনটিভি অনলাইনকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল কত তারিখে ঘোষণা করা হবে সে ব্যাপারে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেননি কমিশনাররা। এমনকি তারিখ ঘোষণার বিষয় নিয়ে আমরা ফুল কমিশন কখনো বসিনি। তবে তফসিল ঘোষণার আগে নির্বাচন সংশ্লিষ্ট প্রত্যেকটা বিষয়ের খুঁটিনাটি জানতে চায় কমিশন। বিশেষ করে আমি সমগ্র নির্বাচনের প্রস্তুতি সম্পর্কে জানতে চাই।’

এই কমিশনার বলেন, ‘খুঁটিনাটি বিষয়গুলো জেনে যদি মনে হয় সব কিছু ঠিক নেই, তাহলে যে বিষয়গুলো ঠিক নেই আগে সেগুলো ঠিক করব। এরপর শিডিউলের (নির্বাচনের তফসিল) বিষয়ে আমরা চিন্তা করব। এসব জানা বা বোঝার আগে আমরা তফসিল ঘোষণার তারিখ নিয়ে কোনো চিন্তা করতে চাই না। নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয় অপূর্ণ রেখে আমরা নির্বাচন নিয়ে চিন্তা করতে চাই না। সব কিছু ঠিক থাকলে জাতীয় নির্বাচনের বিষয়ে ভাববে ইসি।’

কমিশন সভায় আপনারা কী কী জানতে চাইবেন ইসি সচিবালয়ের কাছে-এমন প্রশ্নে রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা জানতে চাই ভোটার তালিকার ভেতরে কোনো স্থান বাদ পড়েছে কি না, কোনো জীবিত ভোটারকে মৃত হিসেবে স্থান দেওয়া হয়েছে কি না, ভোটকেন্দ্রের তালিকা ঠিকঠাক আছে কি না, ভোটকেন্দ্রগুলো উপযোগী কি না। আমাদের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি কেমনসহ আরো নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আমরা জানতে চাই।’

রফিকুল ইসলাম আরো বলেন, ‘তবে ২৮ জানুয়ারির আগে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে ইসির। তফসিল ঘোষণার পর ৪৫ থেকে ৫০ দিন লাগে নির্বাচন সম্পন্ন করতে। সুতরাং সব ধরনের প্রস্তুতির কথা মাথায় রেখে আমরা তফসিল ঘোষণার চিন্তা করব।’

এই ব্যাপারে জানতে চাইলে আরেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা নিয়ে এখনো কোনো কমিশন সভায় আনুষ্ঠানিক আলোচনা হয়নি। নির্বাচনী সব ধরনের প্রস্তুতির কথা মাথায় রেখে নির্বাচন কমিশন তফসিল ঘোষণা করবে। তফসিল ঘোষণার আগে এই নিয়ে আলোচনা হলে অবশ্যই আপনারা জানতে পারবেন। আমরাই বরং জানাব আপনাদের। কিন্তু তার আগে সম্ভাব্য তারিখ নিয়ে মন্তব্য করতে চাই না আমি।’

এসব বিষয়ে জানতে চাইলে ইসির অতিরিক্ত সচিব মো. মোখলেসুর রহমান এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘আগামী কমিশন সভায় নির্বাচন সংশ্লিষ্ট সব প্রস্তুতির খবর আমরা কমিশনারদের জানাব। কোথাও কোনো সমস্যা থাকলে তারা আমাদের পরামর্শ দিবেন। ওই সভায় তফসিলসহ নির্বাচন সংক্রান্ত আরো অনেক বিষয়ে আলোচনা হতে পারে।’

নির্বাচন কোন সময়ে হওয়ার সম্ভাবনা আছে-এমন প্রশ্নে অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘নির্বাচন কবে হবে সেটা তো কমিশন ঠিক করবে। এসব বিষয়ে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে ডিসেম্বরের শেষে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সম্পন্ন করা কঠিন হয়ে উঠবে বলে আমার মনে হচ্ছে। আসলে আমি জানি না ঠিক কী হবে। তবে সময় সব কিছু ঠিক করে দেবে বলে আমার ধারণা।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement