‘মানবিক পৃথিবী’র আত্মপ্রকাশ

১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ২১:০৫

‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য’ এমন একটি মানবিক স্লোগান প্রচলিত থাকলেও সারা বিশ্বেই মানুষে মানুষে হিংসা-বিদ্বেষ আর সহিংসতার আগ্রাসন, ক্ষমতার দম্ভ আর অমানবিক আচরণ বেড়েই চলেছে। মানবিক পৃথিবী গড়তে ছয়জন স্বেচ্ছাসেবীর উদ্যোগে ‘মানবিক পৃথিবী’ নামের একটি সংগঠনের আত্মপ্রকাশ হয়েছে। এ উপলক্ষে আজ বুধবার সকাল ১০টার দিকে রাজধানীর মালিবাগে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

আধুনিক বিশ্বের এই সময়ে এসেও এ সমাজে অসংখ্য সুবিধাবঞ্চিত অসহায় মানুষ ও শিশু রেললাইনের পাশে, বাসস্ট্যান্ডে, রাস্তায় পাশে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা ও চিকিৎসার অভাবে। এসব মানুষের প্রকৃত মানবিক অধিকার নিশ্চিত করা সরকারের একার পক্ষে সম্ভব হয়ে ওঠে না অনেক সময়ই। এ দেশের অসংখ্য সংগঠন তাদের পাশে দাঁড়িয়ে সাহায্য সহযোগিতা করে আসছে প্রতিনিয়ত। তারপরও এই অসহায় মানুষগুলো প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম সেবা পেয়ে থাকে। এ রকম অসহায়, অধিকার বঞ্চিত মানুষের দুঃখ কষ্ট লাঘব করার লক্ষ্যে  ‘মানবিক পৃথিবী’ নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গঠন করার প্রয়াস নিয়েছেন ছয় তরুণ।

তাঁদের প্রত্যাশা দেশের আনাচে-কানাচে পথে-প্রান্তরে ছড়িয়ে থাকা অসহায় ও অমানবিক জীবন-যাপন করা মানুষের জন্য শিক্ষা, স্বাস্থ্য, বস্ত্রসহ তাদের বসবাসের জন্য স্থায়ীভাবে একটি বাসস্থান নির্মাণ করা। একটি সত্যিকারের মানবিক পৃথিবী গড়তে গণমাধ্যমকর্মী, সমাজসেবক, ব্যবসায়ীসহ দেশের সব শ্রেণির মানুষের সহযোগিতা ও শুভকামনা প্রত্যাশা করছেন তাঁরা। তাঁদের প্রত্যাশা সবাইকে সঙ্গে নিয়ে তাঁরা শপথ নেবেন কোনো সুবিধাবঞ্চিত মানুষ এ দেশের রাস্তায় থাকবে না। তাঁরা স্বপ্ন দেখেন অসহায় মানুষগুলোর মানবিক সুবিধা নিশ্চিত করে একটি সুখী সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ।

এই প্রত্যয় নিয়ে ‘মানবিক পৃথিবী’র আত্মপ্রকাশ উপলক্ষে আজ সংবাদ সম্মেলন করেন ছয়জন উদ্যোক্তা। এ সময় সংগঠনের আহ্বায়ক মোহাম্মদ মাসুদ (সম্পাদক, দৈনিক অন্যদিগন্ত) লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বর্ণনা করেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিভিন্ন অনলাইন ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন। আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের উদ্যোক্তা- হাফিজুর রহমান শফিক (সম্পাদক ও প্রকাশক, সকালের সংবাদ), রোমানা আক্তার পুতুল, (ব্যবসায়ী ও সমাজসেবী), বিজয় (গণমাধ্যমকর্মী), স্বপ্ন রোজ (গণমাধ্যমকর্মী) এবং জাকিয়া খানম স্বপ্না (সংগঠক)।