Beta

নেপালি ছাত্রীকে ‘যৌন নিপীড়ন’, চিকিৎসক আটক

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৮:১৮ | আপডেট: ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ০৯:৩৫

সিরাজগঞ্জে বেসরকারি নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে ডা. তুহিন নামের এক চিকিৎসককে আটক করেছে পুলিশ।

গত রোববার রাতে শহরের ধানবান্ধি মহল্লার নিজ বাড়ি থেকে পুলিশ ডা. তুহিনকে আটক করে। তিনি নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক। ভুক্তভোগী ওই তরুণী নেপালের নাগরিক। তিনি ওই কলেজের চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী।

গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে সিরাজগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান, নেপালি ওই ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে ওই চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করার পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, লেখাপড়ার সুবাদে ডা. তুহিন প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন তাঁর সঙ্গে। একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাঁকে যৌন নির্যাতন করেন। সম্প্রতি বিয়ের জন্য চাপ দিলে চিকিৎসক তুহিন অস্বীকার করেন। এ নিয়ে গত শুক্রবার দুপুরে দুজনের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। এ ঘটনার পর রোববার বিকেলে আবারও ওই ছাত্রী ডা. তুহিনের বাড়ি গিয়ে বিয়ের জন্য চাপ দেন। তখনো তাঁদের মধ্যে কথাকাটাকাটি, এমনকি হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। ওই দিনই ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বিষয়টি কলেজের অধ্যক্ষকে জানান এবং সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। পরে ডা. তুহিনকে রাতেই আটক করে পুলিশ।

এ বিষয়ে নর্থ বেঙ্গল মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এস এম আকরাম হোসেন বলেন, ‘অভিযোগ পাওয়ার পর তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আশা করি, দ্রুততম সময়ের মধ্যে এ ঘটনার সবকিছু জানা যাবে।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement