Beta

নরসিংদীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ২৫

২৬ আগস্ট ২০১৮, ২৩:২২

নরসিংদীর নোয়াপাড়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে বসতবাড়ি ভাঙচুর করা হয়। ছবি : এনটিভি

নরসিংদীর বেলাবোতে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে কমপক্ষে ২৫ জন। প্রায় ২০টি বাড়িঘরে ভাঙচুর ও অগ্নি সংযোগ করা হয়।  আজ রোববার বিকেলে বেলাবো উপজেলার নোয়াপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তির নাম কামাল মিয়া (৩০)। তিনি সল্লাবাদ গ্রামের মজনু মিয়ার ছেলে। আহতদের বেলাব, ভৈরব ও কটিয়াদির বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গত চারদিন আগে সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক সেলিম তাঁর অটোরিকশা নিয়ে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তা একটি বাড়ির দেওয়ালে আঘাত করে। এতে ওই বাড়ির দেওয়াল ভেঙে যায়। বাড়িটি ‘কালো ডাক্তারের বাড়ি’ নামে স্থানীয় ভাবে পরিচিত। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই বাড়ির লোকজন নয়ন ব্যাপারীর বাড়ির অটোরিকশার চালক সেলিমকে মারধর করে। এ নিয়ে একই গ্রামের দুই বাড়ির লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরবর্তী সময়ে তাঁদের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের আকার ধারণ করলে স্থানীয় সল্লাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য লিটন মিয়া বিষয়টি নিষ্পত্তির অশ্বাস দেন। এরই মধ্যে রোববার বিকেলে বিষয়টি সমাধানের কথা থাকলেও নয়ন ব্যাপারীর বাড়ির লোকজন দুপুর ১২টার দিকে কালো ডাক্তার বাড়ির লোকজনের ওপর হামলা ও ভাঙচুর  চালায়। তখন কালো ডাক্তারের বাড়ির লোকজন নয়ন ব্যাপারীর বাড়িঘর ভাঙচুর করে। পরে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে কামাল মিয়া নিহত হন।

সংঘর্ষে প্রায় ২৫টি বাড়িঘরে ব্যাপক ভাঙচুর হয়। অগ্নিসংযোগও করা হয় বেশ কয়েকটি ঘরবাড়িতে। খবর পেয়ে বেলাবো থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে সন্ধ্যায় নরসিংদী থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিনি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালায়।

নরসিংদী অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ) মো. শফিউর রহমান বলেন, ‘উভয় পক্ষের সংঘর্ষে একজন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ ক্যাম্প বসানো হয়েছে। তা ছাড়া স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে বৈঠক করা হয়েছে।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement