Beta

রাস্তা থেকে ফুটপাতে এসে কলেজছাত্রকে পিষে মারল লেগুনা

০৪ আগস্ট ২০১৮, ১৩:০৭ | আপডেট: ০৪ আগস্ট ২০১৮, ১৭:২০

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার নীলকুঠিতে আজ শনিবার একটি লেগুনার চাপায় এক কলেজছাত্র নিহত ও পাঁচজন আহত হয়ে। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ করে স্থানীয় লোকজন। ছবি : এনটিভি

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলায় একটি লেগুনা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফুটপাতে গিয়ে এক কলেজছাত্রকে পিষে মেরেছে। এ সময় আহত হয়েছেন আরো পাঁচজন। আজ শনিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার নারায়ণপুরের নীলকুঠি এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্ঘটনার পর পরই উত্তেজিত জনতা লেগুনাটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে গাছ ফেলে  মহাসড়ক অবরোধ করে। একপর্যায়ে স্থানীয়রা লাঠিসোটা নিয়ে রাস্তায় নেমে পড়ে। এ সময় সড়কে চলাচলরত গাড়ি ভাঙচুরের চালায়। পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে ছাত্র নিহতের ঘটনায় ফুসে ওঠে স্থানীয়রাও। পরে রায়পুরা আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ ও সাবেক মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহাম্মেদ রাজু ঘটনাস্থলে গিয়ে উত্তেজিত জনতাকে সড়ক থেকে সরিয়ে নিলে যানচলাচল স্বাভাবিক হয়।

নিহত আবদুল্লাহ (১৭) রায়পুরা উপজেলার ঝারতলা গ্রামের বাসিন্দা। সে পাশের কিশোরগঞ্জের ভৈরব উপজেলার হাজি আসমত আলী কলেজে দ্বিতীয় বর্ষে পড়ত।

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলার নীলকুঠিতে আজ শনিবার একটি লেগুনার চাপায় এক কলেজছাত্র নিহত ও পাঁচজন আহত হয়ে। এর প্রতিবাদে স্থানীয় লোকজন লেগুনাটি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয় । ছবি : এনটিভি

পুলিশ জানিয়েছে, একটি যাত্রীবাহী লেগুনা ভৈরব যাচ্ছিল। গাড়িটি নরসিংদী ও ভৈরবের সীমান্ত এলাকা নারায়ণপুরের নীলকুঠি বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছলে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। এ সময় চালক রাস্তা পাশে থাকা পাইকারি তরকারি বিক্রেতা ও পথচারীর ওপর উঠিয়ে দেন। এতে গাড়ির চাপায় গুরুতর আহত হয় কলেজ ছাত্রসহ ছয়জন। পরে স্থানীয়রা গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠান। এ সময় কলেজছাত্র আবদুল্লাহর অবস্থার অবনতি হলে ঢাকায় নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। অপর আহত কৃষকদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনার পর উত্তেজিত জনতা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে। খবর পেয়ে রায়পুরা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কিন্তু স্থানীয় লোকজন বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠলে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।

পরে রায়পুরা আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ ও সাবেক মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহাম্মেদ রাজু ঘটনাস্থলে গিয়ে উপযুক্ত বিচারের আশ্বাস দিয়ে উত্তেজিত জনতাকে সড়ক থেকে সরিয়ে নেন। প্রায় এক ঘণ্টা পর যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। পরে সাংসদ নিহতের বাড়িতে গিয়ে সমবেদনা জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিউর রহমান, রায়পুরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন, হাইওয়ে পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তরিকুল ইসলাম।

রায়পুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, আবদুল্লাহ ভৈরবে কলেজে যাচ্ছিল। পথে দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে মারা যায়। গাড়ি ও চালককে আটক করা হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement