Beta

ইডেন কলেজছাত্রী ধর্ষণে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

০১ আগস্ট ২০১৮, ০০:৩৩

ইডেন কলেজের এক ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের দায়ে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে দুই লাখ টাকা করে জরিমানা ও অনাদায়ে ছয়মাস কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার সাতক্ষীরার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক হোসনে আরা আক্তার এ আদেশ দেন।

সাজাপ্রাপ্ত আসামির নাম জাহিদুল ইসলাম শুভ (৩৫)। তাঁর বাড়ি কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার কাপড়পোড়া গ্রামে।

আত্মহত্যার শিকার ওই কলেজছাত্রীর নাম খোদেজা ইসলাম শিল্পী (২৮)। তাঁর বাড়ি সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার গোছমারা গ্রামে।

মামলার বিবরণ দিয়ে বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) অ্যাডভোকেট জহুরুল হায়দার জানান,  শিল্পী কলারোয়া উপজেলার তুলসীডাঙা গ্রামে মামার বাড়িতে থেকে পড়ালেখা করতেন। এক সময় মোবাইল ফোনে তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় শুভর। পরে তাঁকে বেড়ানোর নাম করে কুষ্টিয়ায় নিজের বাড়িতে নিয়ে যান শুভ। সেখানে শিল্পীকে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে নগ্ন ছবি তুলেন শুভ। এরপর সেই ছবি প্রকাশ করার ভয় দেখিয়ে শিল্পীকে বিয়ে করেন শুভ। তবে এক সময় শিল্পী তাঁকে তালাক দিয়ে ইডেন কলেজে ভর্তি হন।

এরপর ইডেন কলেজের সামনে থেকে শিল্পীকে অপহরণ করে কুষ্টিয়ার বাড়িতে নিয়ে আটকে রাখেন শুভসহ কয়েকজন। শিল্পী আবারো পালিয়ে মামার বাড়িতে আসেন। ২০১০ সালের ২৪ এপ্রিল অপহরণ, ধর্ষণ ও চিত্র ধারণের অপমান সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যা করেন শিল্পী। এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় মামলা হয়। পুলিশ  শুভর বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়।

আদালত অপহরণের দায়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শুভকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন। একই সঙ্গে একই আইনে ধর্ষণের দায়ে তাঁকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ একই দণ্ড দেন আদালত।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement