Beta

ভোটের পরিবেশ নিয়ে বুলবুলের আপত্তি, ইসির প্রত্যাখ্যান

২৭ জুলাই ২০১৮, ১৮:৪৫ | আপডেট: ২৮ জুলাই ২০১৮, ০৯:১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক
গণসংযোগের সময় কথা বলেন রাজশাহী সিটিতে বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। ছবি : এনটিভি

রাজশাহী ও সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে শেষ মুহূর্তে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন বড় দুই দলের প্রার্থীরা। রাজশাহীতে নির্বাচনের পরিবেশ নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে বিএনপি। অন্যদিকে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নির্বাচনের পরিবেশের চেয়েও ভালো পরিবেশ আছে রাজশাহীতে।

ঝিরিঝিরি বৃষ্টি উপেক্ষা করে আজ শুক্রবার সকাল থেকে গণসংযোগ করেন রাজশাহীর প্রার্থীরা। সকালে নগরীর লক্ষীপুর কাঁচাবাজার এলাকা থেকে গণসংযোগ শুরু করেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল। ভোটগ্রহণের তিন দিন আগে সেনাবাহিনী মোতায়নের দাবিসহ কোনো অভিযোগই নির্বাচন কমিশন আমলে নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন তিনি।

বিএনপির প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘যে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড হয়েছে, সমস্ত অভিযোগ আমরা নির্বাচন কমিশনের কাছে লিখিতভাবে করেছি। এখন পর্যন্ত কোনো প্রতিকার আমরা পাইনি।’

রাজশাহীর সাবেক মেয়র আরো বলেন, ‘আমরা জোর দাবি জানাচ্ছি যে, সেনাবাহিনী নিয়োগ করে রাজশাহীর ভোটে একটা নিরপেক্ষ অবস্থান সৃষ্টি করা হোক।’

এদিকে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বিএনপি প্রার্থীর সেনা মোতায়নের দাবি এখন আর পূরণ করা সম্ভব না বলে জানিয়েছেন জ্যেষ্ঠ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা।

জ্যেষ্ঠ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আতিয়ার রহমান বলেন, ‘নির্বাচনের পরিবেশের চেয়েও ভালো পরিবেশ আছে রাজশাহীতে। কাজেই সেনাবাহিনী মোতায়েনের মতো কোনো পরিস্থিতি রাজশাহীতে নাই।’

আতিয়ার আরো বলেন, ‘যত অভিযোগ পেয়েছি, কোনো অভিযোগ সুনির্দিষ্টভাবে পাইনি। আমাকে বলেছে, পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেছে, কোথায় ছিঁড়ে ফেলেছে তা জানি না।’

এ দিকে সিলেট নগরীর ১৩ রতন হাদারপাড় এলাকা থেকে গণসংযোগ শুরু করেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরী। পরে জিন্দাবাজারসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ করেন। আর নগরীর ছালিবন্দর ও চৌহাট্টি এলাকায়  গণসংযোগ করেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান।

বিএনপির প্রার্থী আরিফুল হক বলেন, ‘সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও গণতান্ত্রিক অধিকারকে খর্ব করে কেউ কোনোদিন সিলেট থেকে পার পেতে পারেনি।’

গণসংযোগের সময় আওয়ামী লীগের প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরান বলেন, ‘একটা পক্ষ যখন জনগণের কাছে ভোটের জন্য দুর্বল হয়ে যায়, যখন জনগণের কাছ থেকে প্রত্যাখাত হয়ে যায় তখন তাদের রুটিনমাফিক কিছু সাজানো কথা আছে এগুলোকে তাদের বাজাতে হয়, এগুলোই তাদের বলতে হয়।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement