Beta

তারাকান্দায় জয়ের ব্যাপারে চারজনই আশাবাদী

২৪ জুলাই ২০১৮, ১২:১৩ | আপডেট: ২৪ জুলাই ২০১৮, ১২:১৬

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চারজন। ছবি : সংগৃহীত

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন কাল বুধবার। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন চারজন। তাঁরা সবাই জয়ের ব্যাপারে আশা প্রকাশ করেছেন।

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকে লড়ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফজলুল হক, ধানের শীষ প্রতীকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান নিলুফার ইয়াসমিন মনি তালুকদার, বিএনপির বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাসুদ রানা খান আনারস প্রতীক নিয়ে ও জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ) মনোনীত প্রার্থী শহীদুল হক শহীদ মশাল প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

ভোটারদের নিজেদের পক্ষে আকৃষ্ট করতে প্রার্থীরা দিচ্ছেন জনবান্ধব নানা প্রতিশ্রুতি। ভোটাররা চান সৎ, যোগ্য ও উন্নয়নবান্ধব প্রার্থীকে ভোট দিতে।

ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী তারাকান্দা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম চৌধুরী, বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের মাওলানা খাইরুল ইসলাম ও ইসলামী ঐক্যজোট সমর্থিত প্রার্থী শরীফুল আকন্দ মোস্তফা। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত সালমা আক্তার কাকন ও বিএনপি সমর্থিত হোসনে আরা আকন্দ।

আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী অ্যাডভোকেট ফজলুল হক বলেন, ‘বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নের রোল মডেল। তারাকান্দা উপজেলা আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আশা করি, আমরা বিজয়ী হব।’

অ্যাডভোকেট ফজলুল হক আরো বলেন, ‘আমি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে উপজেলার বিভিন্ন রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন করব।’ উন্নয়নের জন্য সরকারি দলের প্রার্থী হিসেবে ভোটাররা তাঁকেই বেছে নেবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

অন্যদিকে বিএনপি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী নিলুফার ইয়াসমিন মনি তালুকদার বলেন, ‘আমি তৃণমূলের নেতা। তারাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান থেকে ফুলপুর উপজেলা ও নবগঠিত তারাকান্দা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদেও নির্বাচিত হয়েছি আমি। আমি সব সময় ভোটারদের উন্নয়নের জন্য কাজ করে গেছি। উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে জনগণের জন্য অসমাপ্ত উন্নয়নকাজে মনোযোগ দেব।’

বিএনপির বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী মাসুদ রানা খান বলেন, ‘দল আমাকে মনোনয়ন দেয় নাই। কিন্তু আমি জনগণের প্রার্থী। নির্বাচিত হলে উপজেলায় জনবান্ধব অবকাঠামোগত সার্বিক উন্নয়নের পাশাপাশি মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে জোর দেবো।’

জাসদ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী শহীদুল ইসলাম শহীদ বলেন, ‘বড় দুই দলেই ভোট ভাগাভাগি  হবে। মানুষ বেছে নেবে আমাকে।’

১০টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত তারাকান্দা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা দুই লাখ ১৬ হাজার ৯৩৬ ভোট। পুরুষ ভোটার এক লাখ ১০ হাজার ২৬৩ জন, নারী ভোটার এক লাখ ছয় হাজার ৬৭৩ জন।

আগামীকাল বুধবার তৃতীয়বারের মতো তারাকান্দা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ৭২টি ভোটকেন্দ্রে ৬২৩টি কক্ষে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

ভোট নির্বিঘ্ন করতে প্রয়োজনীয় সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত করা হবে জানিয়েছেন ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement