Beta

ফরিদপুরে সাংস্কৃতিক উৎসবের উদ্বোধন করলেন এলজিআরডি মন্ত্রী

২০ জুলাই ২০১৮, ২৩:৪৫

ফরিদপুরে সাংস্কৃতিক উৎসবে এলজিআরডি মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন। ছবি : এনটিভি

সারা দেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ফরিদপুরেও বিশাল আয়োজন নিয়ে শুরু হয়েছে দুই দিনের সাংস্কৃতিক উৎসব। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে ফরিদপুরের কবি জসীম উদদীন হলে এই উৎসবের উদ্বোধন করা হয়।

সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে ও শিল্পকলা একাডেমির সহযোগিতায় দুই দিনের এই সাংস্কৃতিক উৎসবের আয়োজন করা হয়।

প্রধান অতিথি হিসেবে উৎসবের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় (এলজিআরডি) মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্য মন্ত্রী বলেন, একটি জাতির মূল পরিচয় তার সংস্কৃতিতে। সংস্কৃতি দীর্ঘদিনের  চলমান ধারা। রাতারাতি সংস্কৃতির জন্ম হয় না। একটি অঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের আচার-আচরণ অভ্যাস, চিন্তা ও ভাবনার সমন্বয়ে গড়ে ওঠে তার নিজস্ব সংস্কৃতি। সংস্কৃতির মাধ্যমে মানুষ তার আচার ব্যবহারে পরিপক্কতা লাভ করে। তিনি বলেন, সংস্কৃতি আমাদের বাঁচিয়ে রাখে। যে গান শুনতে ভালোবাসে না, সে মানুষ খুন করতে পারে। আমাদের আনন্দ ও মুক্তির সোপান রয়েছে দেশের সংস্কৃতিতে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পুলিশ সুপার মো. জাকির হোসেন খান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খন্দকার মোহতেসাম হোসেন বাবর, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবল চন্দ্র সাহা।

এ উৎসবে ফরিদপুর শহরসহ নয়টি উপজেলার পর্যায়ের শিল্পী, কবি ও সাহিত্যিকদের অংশগ্রহণ করছেন। উৎসবে রবীন্দ্র সংগীত, নজরুল সংগীত, আধুনিক ও দেশাত্মবোধক গান, কবিতা আবৃত্তি, একক অভিনয়, পল্লীগীতি, লালনগীতি, লোকগীতি, জারি, সারি, মুর্শিদী গান ছাড়াও সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে গান পরিবেশন করা হবে।

পরে মন্ত্রী দর্শক সারিতে বসে জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত শিল্পীদের পরিবেশনা উপভোগ করেন।

এর আগে একই মঞ্চে জেলা ব্র্যান্ডিং বিষয়ক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, যাতে জেলার ব্র্যান্ডিং পণ্য পাটসহ বিভিন্ন বিষয় স্থান পেয়েছে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement