Beta

ঢাকা-শাহজাদপুর-পাবনা রুটে দ্বিতীয় দিনেও বাস চলাচল বন্ধ

০৪ জুলাই ২০১৮, ১৩:৪৮

ঢাকা-শাহজাদপুর-পাবনা রুটে আজ বুধবার দ্বিতীয় দিনের মতো বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ছবি : এনটিভি

সিরাজগঞ্জ বাস-মিনিবাস কোচ মালিক সমিতি ও শাহজাদপুর পরিবহন মালিক গ্রুপের দ্বন্দ্বের জের ধরে ঢাকা-শাহজাদপুর-পাবনা রুটে দ্বিতীয় দিনের মতো বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ঢাকা-পাবনা রুটের দূরপাল্লার বাসগুলো বিকল্প পথে চলাচল করছে।

গতকালের মতো আজ বুধবার সকাল থেকেই সিরাজগঞ্জ থেকে শাহজাদপুর ও পাবনার উদ্দেশে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। একই সঙ্গে পাবনা থেকে ঢাকা, সিরাজগঞ্জ ও বগুড়া রুটেও বাস চলাচল করছে না। এতে যাত্রীদের নানা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বিকল্প ব্যবস্থায় গন্তব্যে পৌঁছতে যাত্রীদের অতিরিক্ত ভাড়াসহ নানা দুর্ভোগে পড়তে হচ্ছে।

এ বিষয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা মোটর মালিক সমিতি শাহজাদপুরের যুগ্ম সম্পাদক এ বি এম নাজমুল ইসলাম বাবলু বলেন, ‘নিয়মবহির্ভূতভাবে সিরাজগঞ্জে মোটর মালিক সমিতির পক্ষ থেকে একটি চিঠি দেওয়া হয় শাহজাদপুর থেকে তাদের চারটি গাড়ি বিভিন্ন রুটে চলাচল করবে। কিন্তু কোনো রকম আলোচনা ছাড়াই রোববার সকালে সিরাজগঞ্জের জেনিন নামের একটি গাড়ি শাহজাদপুরে পাঠিয়ে দেয়। এ সময় শাহজাদপুর মোটর মালিক সমিতির পক্ষ থেকে তাদের সঙ্গে আলোচনা করে গাড়িটি ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়। পরে কোনো রকম আলোচনা ছাড়াই সিরাজগঞ্জ মালিক সমিতির পক্ষ থেকে আমাদের গাড়ি সিরাজগঞ্জের সব রুটে প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দেয়। এমনকি  ঢাকাগামী শাহজাদপুর ট্রাভেলসের একটি গাড়ি কড্ডার মোড় পৌঁছালে গাড়ির সুপারভাইজার ও হেলপারকে মারপিট করে গাড়িটি ফেরত পাঠিয়ে দেয়। সেই প্রতিবাদে আমরা পাবনা ও বগুড়ার সঙ্গে কথা বলে সব রুটের গাড়ি বন্ধ করে দিয়েছি।’

নাজমুল ইসলাম বাবলু আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সেতু হওয়ার পর থেকেই সিরাজগঞ্জ জেলা মোটর মালিক সমিতি ও শ্রমিক ইউনিয়ন আমাদেরসহ আশপাশের জেলাগুলোর পরিবহন শ্রমিকদের সঙ্গে রাহাজানি করে আসছে। আমরা এর প্রতিকার চাই।’

তবে সিরাজগঞ্জ জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনছার আলী বলেন, ‘রমজান মাসের শুরু থেকে রাজশাহী রুটে চেইন ছাড়াই দুটি বাস পরিচালনা করছে শাহজাদপুর মালিক সমিতি। ঈদের আগে আমরা বিষয়টি মেনে নিয়েছিলাম। কিন্তু ঈদ পার হওয়ার পর ধীরে ধীরে তারা আরো গাড়ি বাড়িয়ে দেয় এ রুটে। এ নিয়ে দুই সমিতির দ্বন্দ্বের জের ধরে দুই দিন আগে জেনিন পরিবহনের একটি বাস আটকে রেখেছে শাহজাদপুর মালিক সমিতি। এর প্রতিবাদে আমরা শাহজাদপুরে রুটে কোনো গাড়ি চালাচ্ছি না, তাদের গাড়িও আসতে দেওয়া হচ্ছে না।’

হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল কাদের জিলানী বলেন, দুই সমিতির দ্বন্দ্বের কারণে শাহজাদপুর-পাবনা রুটে বাস চলাচল দ্বিতীয় দিনেও বন্ধ রয়েছে। একই সঙ্গে পাবনার সঙ্গে ঢাকা-বগুড়ার বাস চলাচলও করতে দেওয়া হচ্ছে না। তবে বিকল্প রাস্তায় পাবনা-ঢাকার কিছু দূরপাল্লার বাস চলছে। সুষ্ঠু সমাধানের লক্ষ্যে উভয় মালিক সমিতির নেতাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে সমাধানের চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement