Beta

প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে যুবক, গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন

০৬ মে ২০১৮, ১৯:০৭ | আপডেট: ০৬ মে ২০১৮, ২০:১০

মেহেরপুরের গাংনীতে অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগ তুলে এক প্রবাসীর স্ত্রী ও এক রাজমিস্ত্রিকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করে স্থানীয় তিন যুবক। ছবি : এনটিভি

মেহেরপুরের গাংনী উপজেলায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর ঘরে এক যুবককে দেখে অবৈধ সম্পর্কের অভিযোগ তুলে দুজনকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেছে স্থানীয় তিন যুবক। 

আজ রোববার এ ঘটনা ঘটে। অনৈতিক কাজে লিপ্ত থাকার অভিযোগে দুজনকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখেছে স্থানীয়রা। 

আটক যুবকের নাম সম্রাট মোল্লা। পেশায় তিনি একজন রাজমিস্ত্রি। অন্যদিকে, ওই নারীর স্বামী মালদ্বীপ প্রবাসী। ওই নারী অবৈধ সম্পর্কের কথা অস্বীকার করেছেন।

প্রবাসীর স্ত্রী জানান, কিছুদিন ধরে তাদের পাড়ার এক লম্পট তাঁকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছিল। তার কুপ্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় রাতে এক রাজমিস্ত্রিকে তাঁর ঘরে ঢুকিয়ে দেয়। এ সময় অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ তুলে ফয়জুদ্দীনের ছেলে গোলাম মোস্তফা, মনিরুল ইসলাম ও তাঁর দুজন ছেলে রুবেল হোসেন ও মিলন তাঁকে গাছের সঙ্গে বেঁধে বেধড়ক মারধর করে।

নির্যাতনের খবর পেয়ে দুপুরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে গাংনী থানা হেফাজতে নিয়ে যায়। 

স্থানীয়রা অভিযোগ করে জানায়, গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার রাজমিস্ত্রি সম্রাট মোল্লা দুই মাস ধরে গাংনীর সাহারবাতি ইউনিয়নে একটি মসজিদ নির্মাণের কাজ করছেন। সেখানে থাকার কারণে মসজিদের পাশের বাড়ির ওই নারীর সঙ্গে তাঁর  প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আজ ভোররাতে প্রবাসীর ঘর থেকে তাঁর স্ত্রী ও সম্রাটকে আটক করে গাছের সঙ্গে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখে গ্রামের তিন যুবক। এ সময় দুজনকে বেধড়ক মারপিট করা হয়।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার বলেন, গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখার খবর পেয়ে পুলিশ দুজনকে উদ্ধার করেছে। এ বিষয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্ত তিন যুবককেও আটকের চেষ্টা করছে পুলিশ। 

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement