Beta

সুন্দরবনে ডুবন্ত কয়লাবোঝাই জাহাজ উদ্ধারে তৎপরতা নেই

১৬ এপ্রিল ২০১৮, ১১:২৫

মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়িয়া এলাকায় ডুবে যাওয়া এমভি বিলাস। ছবি : এনটিভি

মোংলা বন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়িয়া এলাকায় ডুবে যাওয়া কয়লাবোঝাই জাহাজ উদ্ধারে এখনো কোনো তৎপরতা শুরু হয়নি।

গত শনিবার গভীর রাতে চরে আটকে কাত হয়ে ডুবে যাওয়ার পর কাল রোববার দুপুরে শুধু ডুবন্ত জাহাজটিতে মার্কিং করা হয়।

আজ সোমবার সকাল পর্যন্ত জাহাজটি উদ্ধারে কোনো কার্যক্রম দেখা যায়নি।

কার্গো জাহাজটি মূল চ্যানেলের বাইরের দিকে ডুবে যাওয়ায় এ নৌপথ দিয়ে দেশি-বিদেশি জাহাজসহ সব ধরনের নৌযান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

পশুর চ্যানেলের সুন্দরবনের অভ্যন্তরে কয়লাবোঝাই কার্গো জাহাজডুবির এ ঘটনায় গতকাল বিকেলে মোংলা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে বলে জানান বন বিভাগের চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা কামরুল হাসান।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. মাহামুদুল হাসান জানান, জাহাজডুবির ঘটনার তদন্ত ও এতে ক্ষয়ক্ষতির প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন দিতে চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা মো. শাহিন কবিরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আজ প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা কামরুল হাসান বলেন, ‘গতকালও কার্গো জাহাজ উদ্ধারকাজ শুরু হয়নি, আজ সকাল পর্যন্ত উদ্ধারকাজের কোনো তৎপরতা দেখছি না।’

এ বিষয়ে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার কমান্ডার ওয়ালিউল্লাহ বলেন, ‘মালিকপক্ষকে দ্রুত পশুর চ্যানেলে থেকে ডুবন্ত কার্গো উত্তোলনে কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তারা এ নির্দেশনা উপেক্ষা করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থাসহ কার্গো মালিকানা বাতিল করে অপর উত্তোলনকারী প্রতিষ্ঠান দিয়ে নো লস, নো প্রোফিট চুক্তি ভিত্তিতে এটি অপসারণ করা হবে।’

পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়িয়া-৬ নম্বর অ্যাঙ্কোরেজে থাকা বিদেশি জাহাজ থেকে প্রায় ৭৭৫ টন কয়লা বোঝাই করে এমভি বিলাস নামে কার্গো জাহাজটি গত শনিবার গভীর রাতে ভাটার সময় চরে আটকে কাত হয়ে ডুবে যায়।

Advertisement