Beta

রাস্তায় কথা বলতে বলতে শাশুড়িকে ছুরিকাঘাত!

২৯ মার্চ ২০১৮, ১৮:৪২ | আপডেট: ২৯ মার্চ ২০১৮, ১৮:৪৭

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর থানার সামনে ভ্যানে খয়রুন নেছার মৃতদেহ। ছবি : এনটিভি

গাইবান্ধার সাদুল্যাপুর উপজেলার দামোদরপুর ইউনিয়নের মরুয়াদহ গ্রামে  খয়রুন নেছা (৫৮) নামের এক নারী খুন হয়েছেন। গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে মেয়ের জামাই সাইফুল ইসলামের ছুরিকাঘাতে তিনি খুন হন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

খায়রুন নেছা মরুয়াদহ গ্রামের মৃত আবদুস সামাদ ব্যাপারীর স্ত্রী।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানিয়েছে, খায়রুন নেছার মেয়ে শাহানা আক্তারকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন সাইফুল ইসলাম। তাঁদের দুই ছেলে-মেয়ে রয়েছে। বিয়ের পর থেকে তাঁদের দাম্পত্য কলহ ছিল। কিছুদিন আগে শাহানা আক্তার সাইফুল ইসলামকে তালাকের নোটিশ দিয়ে ঢাকায় যান। সাইফুল স্ত্রীকে ফিরে পেতে শাশুড়ি ও শ্যালকদের বিভিন্নভাবে হুমকি দিয়ে আসছিলেন। গতকাল বুধবার রাতে সাইফুল ইসলাম শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে কৌশলে শাশুড়ি খয়রুন নেছাকে ডেকে বের করেন। বাড়ির পাশে রাস্তার ওপরে কথা বলার একপর্যায়ে শাশুড়ির পিঠে ছুরিকাঘাত করেন সাইফুল। এ সময় খয়রুন নেছার চিৎকারের আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে সাইফুল পালিয়ে যান। পরে দ্রুত খায়রুন নেছাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

সাদুল্যাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বোরহান উদ্দিন জানান, খবর পেয়ে হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ গাইবান্ধা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। অভিযুক্ত সাইফুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সাইফুল ইসলামের বাড়ি সদর উপজেলার কূপতলা বাঁধের মাথা নামক এলাকায়।

Advertisement