Beta

ভারতীয় সেনা ছিলেন ৩০ বছর, এখন অবৈধ বাংলাদেশি!

০১ অক্টোবর ২০১৭, ১৭:২১

এনডিটিভি

ভারতের সেনাবাহিনীতে ৩০ বছর চাকরির পরও এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি অবৈধ বাংলাদেশি। তাঁর নাম মোহাম্মদ আজমল হক। তিনি আসাম রাজ্যের রাজধানী গুয়াহাটি থেকে ৭০ কিলোমিটার দূরে ছায়াগঞ্জ এলাকায় থাকেন।

এ অভিযোগে রাজ্যের বিদেশি ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছে পুলিশ। আগামী ১৩ অক্টোবর মামলাটির শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

আজমল হক ভারতের সেনাবাহিনীতে জুনিয়র কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন। গত বছরই অবসরে যান তিনি।

এনডিটিভি জানায়, ক্ষমতায় আসার পর আসাম সীমান্ত দিয়ে অবৈধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে কড়াকড়ি আরোপ করে বিজেপি সরকার। এ ছাড়া বর্তমানে আসামে অবৈধ বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী বিষয়টি খুবই স্পর্শকাতর।

আসামের স্থানীয়দের অভিযোগ, বেশ কিছু ঘটনায় ভারতীয় নাগরিকদের হেনস্তা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

মামলার বিষয়ে মোহাম্মদ আজমল হক বলেন, ‘আমার খুব মন খারাপ, অনেক কেঁদেছি। আমার হৃদয় ভেঙে গেছে… ৩০ বছর সেবা দেওয়ার পর আমাকে এমন অপমানের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। আমি যদি অবৈধ বাংলাদেশিই হতাম, তাহলে ভারতীয় সেনাবাহিনীতে চাকরি করলাম কীভাবে?’ তিনি বলেন, ‘ভারতীয় সেনাবাহিনীতে যে-ই যোগ দিক না কেন, সবার ক্ষেত্রেই পুলিশ যাচাই করে থাকে। আমার ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম হয়নি।’

আজমল হক বলেন, ‘২০১২ সালে আমার স্ত্রী মমতাজ বেগমকেও একই ধরনের অভিযোগের মুখোমুখি হতে হয়েছিল। সে সময় আমরা দুজনেই ভারতীয় নাগরিকত্বের প্রমাণ হাজির করি। সব তথ্য-প্রমাণ যাচাই-বাছাইয়ের পর ভারতীয় নাগরিক হিসেবে আমাদের আদালত রায় দেন।’

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। নির্ঝরি সিনহা নামে একজন টুইটবার্তায় লেখেন, ‘এভাবে আসাম পুলিশ কাজ করে। কোনো তদন্ত ছাড়াই ভারতীয় নাগরিকরা অবৈধ অভিবাসী হিসেবে অভিযুক্ত হচ্ছেন।’

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement