Beta

আলজাজিরায় বোমা মারতে বলেছিলেন আমিরাতের যুবরাজ!

৩০ জুন ২০১৭, ১৬:৩৪ | আপডেট: ৩০ জুন ২০১৭, ১৬:৫৭

মিডল ইস্ট মনিটর
আলজাজিরার প্রধান কার্যালয়ে বোমা মারতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান। ছবি : ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে আফগানিস্তান যুদ্ধের সময় কাতারের দোহাভিত্তিক টেলিভিশন আলজাজিরার প্রধান কার্যালয়ে বোমা মারতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের (ইউএই) যুবরাজ মোহাম্মদ বিন জায়েদ আল-নাহিয়ান।

ইউএইর কূটনৈতিক একটি নথির বরাত দিয়ে বুধবার আরাবি ২১ ডটকমের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

একটি নথি থেকে জানা যায়, বাবা জায়েদ আল-নাহিয়ান ও কাতারের সাবেক আমির শেখ হামাদ বিন খলিফা আল-থানির একটি বৈঠকের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে আলজাজিরায় বোমা মারার বিষয়টি উত্থাপন করেন যুবরাজ মোহাম্মদ। 

একই নথিতে দেখা যায়, আফগানিস্তানে প্রথম হামলার সময় যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের সঙ্গে সাংবাদিক না রাখারও পরামর্শ দিয়েছিলেন বিন জায়েদ। এর উদ্দেশ্য ছিল বেসামরিক লোকজনের মৃত্যুর বিষয়টি আড়াল করে দেওয়া।

ওই নথি থেকে জানা যায়, ইরাক যুদ্ধ শুরু হওয়ার মাত্র দুই মাস আগে যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতিক রিচার্ড হাসের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন বিন জায়েদ। একই সঙ্গে ইরাকের বিষয়ে তথ্য দেওয়া এবং যুদ্ধের বিষয়ে আরবদের ক্ষোভ দমিয়ে রাখার বিষয়ে আমেরিকানদের পরামর্শ দিতে চেয়েছিলেন।

গত ৫ জুন সৌদি আরবের নেতৃত্বে উপসাগরীয় সহযোগিতা সংস্থার (জিসিসি) তিন আরব দেশ কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিকসহ সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে। সৌদির এই অবরোধে যোগ দেয় জিসিসির অন্য দুই দেশ ইউএই ও বাহরাইন। তাদের সঙ্গে আরো দেয় মিসর, জর্দান, মালদ্বীপও। 

প্রায় এক মাস ধরে চলা এই বিরোধ নিষ্পত্তির জন্য সৌদি জোট  কাতারকে ১৩টি শর্ত দেয়। এর অন্যতম ছিল আল-জাজিরার সম্প্রচার বন্ধ করা। 

Advertisement
0.8167781829834