Beta

বাজেটের মধ্যে অ্যাকশন ক্যামেরা

২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:৫২

মো. মিজানুর রহমান

স্মৃতি ধারণ করে রাখতে কার না ভালো লাগে? আনন্দ, উত্তেজনা কিংবা আবেগের সময়গুলো ধরে রাখতে ক্যামেরার ভূমিকা সবচেয়ে বেশি। সাধারণত মোবাইল ফোনের ক্যামেরা এ ক্ষেত্রে প্রাধান্য পেয়ে থাকে। কিন্তু সব সময় মোবাইল ফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করা যায় না। যেমন ধরা যাক, আপনার ইচ্ছা হলো বাইক রাইডিং অথবা সাইকেলিং করার সময় ভিডিও ধারণ করতে। কিন্তু আপনার দুই হাতই তো ব্যস্ত। এখানে আপনার ইচ্ছা পূরণ করবে অ্যাকশন ক্যমেরা। অ্যাকশন ক্যামেরা আকৃতিতে ছোট হওয়ায় হেলমেট অথবা বাইকের হ্যান্ডেলে লাগিয়ে ভিডিও ধারণ করা যায়।

এখন বাজারে কম মূল্যে অ্যাকশন ক্যামেরা পাওয়া যায়। শাওমি আই অ্যাকশন ক্যামেরা এবং রিমেক্স এসডি-০২ বাংলাদেশের বাজারে দুটি জনপ্রিয় অ্যাকশন ক্যামেরা।

শাওমি ওয়াইআই অ্যাকশন ক্যামেরা

প্রায় ৭৭ গ্রাম ওজনের ছোট ক্যামেরা এটি। সনির ১৬ মেগাপিক্সেল ইমেজ সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে। দেওয়া হয়েছে ১৫৫ ডিগ্রি আলট্রা ওয়াইড অ্যাঙ্গেল গ্লাস লেন্স। ওয়াটার প্রুফ কভার ব্যবহার করে পানির নিচে ভিডিও করা যাবে। কভারটি আলাদাভাবে কিনতে হবে। ১০১০ এমএএইচ ব্যাটারিটি দিয়ে ৯০ মিনিট পর্যন্ত হাই-ডেফিনেশন ভিডিও করা যাবে। ক্যামেরায় কোনো ডিসপ্লে না থাকায় মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে সেটিং নির্ধারণ করতে হবে। ৬৪ জিবি পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে। ক্যামেরাটি ছয় থেকে সাত হাজার টাকার মধ্যে কেনা যাবে।

রিমেক্স আসডি-০২    

এটি মাত্র ৪৫ গ্রাম ওজনের একটি ক্যামেরা। ক্যামেরাটি দিয়ে ফোরকে (4K) রেজ্যুলেশনে ভিডিও করা যাবে। ১৫৫ ডিগ্রি ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স ব্যবহার করা হয়েছে। পেছনে ২ ইঞ্চির ডিসপ্লে যুক্ত আছে, যা দিয়ে ভিডিও রেকর্ড করার পর দেখা যাবে। ১০৫০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে, যা দিয়ে ৮০ মিনিট পর্যন্ত ভিডিও রেকর্ডিং করা যাবে। ক্যামেরাটির বক্সের ভেতরেই ওয়াটার প্রুফ কভারসহ আরো অনেক অ্যাকসেসরিজ দেওয়া হয়েছে। এই ক্যামেরাও ছয় থেকে সাত হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে।

বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সের ক্যামেরার দোকান অথবা বিভিন্ন অনলাইন শপ থেকে ক্যামেরাগুলো কিনতে পারবেন।

ইউটিউবে এনটিভির জনপ্রিয় সব নাটক দেখুন। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

Advertisement